২০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং, মঙ্গলবার, ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

উক্ত স্মারক লিপি প্রদান করা হলে উপস্থিতদের উদ্দেশ্য করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, অচিরেই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। তিনি আরো বলেন, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রালয় এ বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

প্রাথমিকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি চেয়ে গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীকে স্মারক লিপি প্রদান

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্কঃ
ত্রিশ লক্ষ বেকারের পক্ষে প্রাথমিকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি চেয়ে গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রীকে স্মারক লিপি প্রদানঃ

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে দ্রুত নতুন সার্কুলারের প্রত্যাশায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব জাকির হোসেন, এমপি মহোদয় সমীপে একটি স্বারক লিপি প্রদান করা হয়েছে। স্মারক লিপি টি কুড়িগ্রাম জেলার রোমারী উপজেলা পরিষদে মাননীয় প্রতিমন্ত্রী স্বহস্তে গত ২৭ জুন ২০২০ তারিখ রোজ শনিবার দুপুর ১২ টার সময় গ্রহন করেন। যে সময় মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর সাথে উক্ত রোমারী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, অত্র উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

‘মুজিব বর্ষের অঙ্গিকার, থাকবেনা কেউ বেকার’ স্লোগান সমৃদ্ধ স্মারক লিপিতে তারা উল্লেখ করেন,

# প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদে বিগত দুই বছর যাবত ত্রিশ লক্ষ উচ্চ শিক্ষিত বেকার সার্কুলারের প্রহার গুনছে। যেহেতু প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক পদের সার্কুলার অন্যতম বড় সার্কুলার সেহেতু এর প্রতিক্ষারত অনেক উচ্চ শিক্ষিত বেকার। এখন আগের তুলনায় অনেক বেশি মেধাবী শিক্ষার্থী যথা বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়াগণ ও শিক্ষকতার এই মহান পেশায় নিজেদের নিযুক্ত করছেন ও এ পেশার প্রতি আগ্রহী হচ্ছেন।
তারা উচ্চ শিক্ষিত মেধাবীদের এ পেশায় নিয়োগ প্রদানের জন্য দ্রুত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের জোর দাবি জানান। যাতে দ্রুত বেকারত্বের অভিশাপ থেকে অধিকতর মেধাবীগন মুক্তি পেতে পারে।

উক্ত স্মারক লিপিতে প্রাথমিকে দ্রুত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের গুরুত্ব তুলে ধরে তারা লেখেন:

  • প্রাথমিকে দ্রুত নতুন নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হলে হাজার হাজার মেধাবী বেকারের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে।
  • নিয়োগ প্রত্যাশীদের পরীক্ষার ফি করোনা কালীন দুর্যোগের সময়ে দেশের অর্থনীতি কিছুটা হলেও যুক্ত হবে।
  • অধিকতর মেধাবীদের মেধার প্রকৃত মূল্যায়ন হবে এবং মেধাবী শিক্ষক নিয়োগের পথ সুগম হবে।
  • লাখো বেকার, যারা লক ডাউনে মারাত্মক দুশ্চিন্তায় জীবন যাপন করছে, যাদের চাকুরীর বয়স শেষ হতে চলেছে তারা জীবনের শেষ সরকারি চাকুরী প্রাপ্তির সুযোগটি কাজে লাগাতে পারবে।
  • প্রকৃতি মেধাবী শিক্ষক পরবর্তী প্রজন্মের জন্য মেধাবী জাতি উপহার দিতে পারবে বলে উল্লেখ করে তারা লেখেন নতুন সার্কুলার এখন সময়ের দাবি।

সর্বপরি, সার্বিক দিক বিবেচনায় ত্রিশ লক্ষ উচ্চ শিক্ষিত বেকারের কথা মাথায় রেখে প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক পদে দ্রুত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের বিহিত ব্যবস্থা গ্রহন করতে মাননীয় প্রতিমন্ত্রীর সদয় সুদৃষ্টি কামনা করেন।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্রুত সার্কুলার চেয়ে স্মারক লিপিটি পেশ করেন মো.আলমগীর হোসেন, আনোয়ার হোসেন হিমু, মো. রুবেল হোসেন, ইকবাল হোসেন রাজু প্রমুখ।

উক্ত স্মারক লিপি প্রদান করা হলে উপস্থিতদের উদ্দেশ্য করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, অচিরেই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে। তিনি আরো বলেন, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রালয় এ বিষয়ে কাজ করে যাচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে ‘দৈনিক বিদ্যালয়’ কে স্মারক লিপি প্রদানকারী সদ্য গ্রাজুয়েট প্রাপ্ত ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকুরী প্রত্যাশী আলমগীর হোসেন বলেন, আমারা বিভিন্ন উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হতে উচ্চ শিক্ষা লাভ করে দেশ ও জাতির কল্যানে শিক্ষা ক্ষেত্রে চাকুরীতে অধিক আগ্রহী। আমরা আশা করছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জননেত্রী শেখ হাসিনা, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রালয়ের সচিব ও প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহা পরিচালক মহোদয় প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নে উচ্চশিক্ষিত মেধাবীদের জন্য দ্রুত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রদান করে ও পরীক্ষার মাধ্যমে তাদেরকে যাচাই বাছাই পূর্বক অধিকতর মেধাবীদের নিয়োগ প্রাপ্ত হওয়ার সুযোগ প্রদান করবেন।

এছাড়া মুঠো ফোনে প্রাথমিকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রত্যাশী ইকবাল হোসেন রাজু বলেন, আমরা ত্রিশ লক্ষের অধিক মেধাবী বেকার নিয়োগ প্রত্যাশী রয়েছি। করোনায় সবকিছু স্থবির হয়ে আছে। আমাদের অনেকেরই প্রায় বয়স শেষের দিকে। এমন অবস্থায় আমাদের মাঝে চরম হতাশা বিরাজ করছে। তাই সরকারের কাছে আমরা আশা করছি, এই আপদকালীন সময়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জন্য সহকারী শিক্ষক পদে দ্রুত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে যোগ্য, মেধাবী শিক্ষক নিয়োগ প্রদান করে আমাদের বেকারত্ব দুরী করণে যথার্থ ভুমিকা রাখবেন।

উল্লেখ্যঃ খুব দ্রুতই প্রাক প্রাথমিকের ৪ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের জন্য প্রতিটি ক্লাস্টার থেকে একটি করে বিদ্যালয়ে একজন করে শিক্ষকের জন্য নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হবে বলে জানা গেছে।

এছাড়া বিগত ২৫ জুন তারিখের প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর এর এক প্রজ্ঞাপনে দেখা গেছে ৩০ জুন ২০২০ তারিখ পর্যন্ত প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী ও প্রধান শিক্ষকদের শুন্য পদের তালিকা চাওয়া হয়েছে। যা এস.এম. মাহবুব আলম, গবেষণা কর্মকর্তা, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক স্বাক্ষরিত। যা থেকে আশা করা যায়; দ্রুতই বড় ধরনের একটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হবে।
আরো উল্লেখ্য, সারা বাংলাদেশের প্রাথমিক বিদ্যালয় সমুহে এই মুহুর্তে প্রায় ২৯ হাজার শিক্ষকের পদ শুন্য আছে।

ফেসবুকে লাইক দিন