জেনারেল শিক্ষিতরা কেন মাদ্রাসার লাইব্রেরিয়ান পদে আসতে পারবে না এই মর্মে রিট

মাদ্রাসা

দৈনিক বিদ্যালয় | নিজস্ব প্রতিবেদক |

জেনারেল শিক্ষিতরা কেন মাদ্রাসার লাইব্রেরিয়ান পদে আসতে পারবে না এই মর্মে রিট

“বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাদ্রাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮” এর ৩৫ নং কলামে উল্লিখিত “সহকারী গ্রন্থাগারিক” পদের নিয়োগে শিক্ষাগত যোগ্যতায় শুধু ফাজিল বা আরবি বিষয়ে অনার্স ডিগ্রি এবং গ্রন্থাগার বিজ্ঞানে ডিপ্লোমা যোগ্যতা চাওয়া হয়েছে। ফলে কলেজ-ইউনিভার্সিটি থেকে জেনারেল বিষয়ে স্নাতক বা অনার্স পাশকৃত গ্রন্থাগার বিজ্ঞানে ডিপ্লোমাধারীরা বঞ্চিত হয়। তাই জেনারেল শিক্ষিত ডিপ্লোমাধারীদের পক্ষে উক্ত নীতিমালার বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ করে জয়পুরহাট জেলার সদর উপজেলার শালগাঁ গ্রামের মোঃ মামুনুর রশিদ বাদী হয়ে হাইকোর্টে একটি রিট পিটিশন দাখিল করেন।

আজ মঙ্গলবার ১৮/০৮/২০ তারিখ বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এবং বিচারপতি এ.কে.এম জহিরুল হকের ব্রাঞ্চ উক্ত নীতিমালায় উল্লিখিত মাদ্রাসায় “সহকারী গ্রন্থাগারিক নিয়োগে শিক্ষাগত যোগ্যতায় সমমান না রাখা কেনো অবৈধ ঘোষণা করা হবে না” মর্মে রুল জারি করেন। উক্ত রিট মামলায় মাধমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তর ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সংশ্লিষ্ট ৪ জন ব্যক্তিবর্গকে বিবাদী করা হয়।

উক্ত মামলায় বাদীদের পক্ষে শুনানি করে এডভোকেট মোঃ হুমায়ুন কবির(বাদশা)।

এ বিষয়ে রিট মামলার অপর সদস্য জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি উপজেলার গোড়না গ্রামের মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক এর সাথে যোগাযোগ করা হলে উনি জানান- “সহকারী গ্রন্থাগারিক” পদটি একটি সার্বজনীন পদ। তাই এর নিয়োগে সমমান ছাড়া অন্য কোনো যোগ্যতা গ্রহণযোগ্য হতে পারে না। নীতিমালাতে শুধু মাদ্রাসা শিক্ষিতদের সুযোগ নিঃসন্দেহে একটা বৈষম্যমূলক এবং পক্ষপাতী সিদ্ধান্ত। যা দেশের হাজার হাজার জেনারেল শিক্ষিতদের জন্য দুঃখজনক। এটা মেনে নেওয়া যায় না। আজ বিজ্ঞ আদালত আমাদের মামলার পক্ষে ও রুল দেওয়ায় আমরা আশান্বিত। আদালতের মাধম্যে আমরা দ্রুত আমাদের ন্যায্য দাবি “সমমান যোগ্যতা” ফিরে পাব বলে আশা করি।

READ MORE  বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগ দিতে শূন্যপদে তথ্য সংগ্রহ চলছে

আরও পড়ুন গ্রন্থাগারিক পদে জনবল কাঠামো নীতিমালায় যোগ্যতা জটিলতা এবং সেশনজট

উল্লেখ্য, “বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (মাদ্রাসা) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১০” এ উক্ত পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতায় স্নাতক/সমমান ডিগ্রি উল্লেখ ছিল। কিন্তু ২০১৮ সালে উক্ত পদের শিক্ষাগত যোগ্যতায় সমমান ডিগ্রি পরিবর্তন করে ফাজিল বা আরবি বিষয়ে অনার্স ডিগ্রি করা হয়। তাছাড়া “বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান (স্কুল, কলেজ, কারিগরি) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮” এর সকল ক্ষেত্রে সহকারী গ্রন্থাগারিক-কাম-ক্যাটালগার নিয়োগে সমমান যোগ্যতা এখন বহাল আছে। সুতরাং মাদ্রাসা শিক্ষিতরা সকল প্রতিষ্ঠানে উক্ত পদে নিয়োগ লাভের সুযোগ পেলেও জেনারেল শিক্ষিতরা মাদ্রাসায় নিয়োগ লাভের সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

(ডি বি আ ব)

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *