২৫শে নভেম্বর, ২০২০ ইং, বুধবার, ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

আল-জাজিরা টিভিতে যা বলল ফরাসি সেই প্রেসিডেন্ট

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্কঃ প্রতিবাদ ও ফরাসি পণ্য বর্জনের মুখে ইসলাম অবমাননাকর বক্তব্য থেকে কিছুটা পিছু হটেছে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ। মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা) এর অবমাননায় মুসলমানদের অনুভূতি উপলব্ধি করতে পেরেছে বলে জানিয়েছে সে। হ্যা, তবে সে এ বিষয়ে প্রকাশ্যে ক্ষমা চায়নি।

গতকাল শনিবার কাতার ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আলজাজিরাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ফ্রান্স প্রেসিডেন্ট বলে, ইসলাম অবমাননাকর কার্টুন প্রকাশের ফলে মুসলমানদের অনুভূতিতে যে ধরণের আঘাত লেগেছে, তা উপলব্ধি করতে পারছি কিন্তু কিছু মানুষ আছে, যারা ইসলাম ধর্মের বিকৃতি ঘটাচ্ছে এবং এই ধর্মের নাম নিয়ে এটি রক্ষার ঝাণ্ডা হাতে তুলে নিয়েছে।

ম্যাক্রোঁ বলেন, ব্যাঙ্গাত্মক কার্টুন প্রকাশ আমাদের সরকারের কোনো সরকারি প্রকল্প নয়; বরং এমন কিছু পত্রিকা এ কাজ করেছে, যাদের ওপর সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই।

উল্লেখ্য, এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর ইসলাম অবমাননাকর বক্তব্যের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী মুসলমানরা তীব্র ক্ষোভে ফেটে পড়ার পর নিজের বক্তব্য থেকে সরে গেল সে। এমন সময় তিনি নতুন এই বক্তব্য দিলেন, যখন সম্প্রতি তিনি ফরাসি পত্রিকা শার্লি হেবদোতে প্রকাশিত ইসলাম অবমাননাকর কার্টুনের পক্ষ সমর্থন করে কথা বলায় মুসলিম বিশ্বে ফরাসি পণ্য বর্জনের ডাকও সাড়া ফেলতে শুরু করেছে। সম্প্রতি স্যামুয়েল প্যাটি নামক ফ্রান্সের একজন শিক্ষক ক্লাসের শিক্ষার্থীদের সামনে বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদ (সা) কে নিয়ে অবমাননাকর চিত্র প্রদর্শন করে। এরপর এক হামলায় সে নিহত হন। ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ ওই হত্যাকাণ্ডের জন্য ফরাসি মুসলমানদের দায়ী করেন এবং দাবি করেন মুসলমানরা ফ্রান্সকে ধ্বংস করতে চায়।

কয়েকদিন আগে খুন হওয়া সেই ফরাসি শিক্ষক স্যামুয়েল প্যাটিকে সম্মান জানাতে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে ম্যাক্রোঁ বলে, ইসলাম ধর্ম ও বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদকে (সা) নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শন বন্ধ করা হবে না। এরপরই ফ্রান্সের মুসলিমরা ম্যাক্রোঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন, তাদের ধর্মকে দমন করা ও ইসলামফোবিয়াকে বৈধতা দিতে চেষ্টা করছে সে।  

ম্যাঁক্রোর এমন বিতর্কিত মন্তব্যের পরই মুসলিম ও বেশ কয়েকটি আরব দেশ নিন্দা জানিয়েছে। সবচেয়ে কড়া মন্তব্যটি আসে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান থেকে, তিনি বলেন ফরাসি প্রেসিডেন্টের মানসিক চিকিৎসা দরকার।

অন্য দিকে মুসলিম বিশ্ব থেকে ফরাসি পণ্য বয়কটের ডাক আসে। শুধু আরব নয় পুরো মুসলিম বিশ্বে ফরাসি পণ্য বয়কটের হিড়িক পড়ে যায়। এর মাঝেই ফরাসি প্রেসিডেন্ট কিছুটা সুর নরম করল মাত্র।

ডিবি-আর আর।

ফেসবুকে লাইক দিন