২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং, মঙ্গলবার, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

বিষয় : ১২তম বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধনধারী রিট পিটিশনারদের নিয়োগ দেওয়া

দৈনিক বিদ্যালয় : ১২ তম বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধনধারী রিট পিটিশনাদের নিয়োগ দেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি বিনীত আবেদন জানিয়েছেন রাজবাড়ী জেলার মোঃ জামাল হোসাইন। মোঃ জামাল হোসাইন ১২ তম শিক্ষক নিবন্ধনধারী উপজেলা ও জেলা পর্যায়ে মেধা তালিকায় (প্রভাষক- রসায়ন) ১ম স্থান অধিকার করেন। ২০০৫ সালে এন.টি.আর.সি.এ গঠিত হওয়ার পর মোটামুটি সঠিকভাবেই শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা গ্রহণ ও সনদ প্রদান করে আসছিলো।

সল্প পরিসরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার চিন্তা-ভাবনা

আর সারাদেশের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোর (স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা) ম্যানিজিং কমিটির মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতো। কমিটির মাধ্যমে নিয়োগ প্রক্রিয়া পরিচালিত হওয়ার কারণে ব্যাপক অনিয়ম, সজন প্রীতি ও দুর্নীতি হতো। তাই ২০১৫ সালের ২২ অক্টোবর এক পরিপত্রের মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষমতা এন.টি.আর.সি.এ এর অধীনে চলে যায়। ২২ অক্টোবর ২০১৫ সালে তৎকালীন মাননীয় শিক্ষা সচিব জনাব এন.আই.খান স্যার কর্তৃক যখন নতুন পরিপত্র জারী করে এন.টি.আর.সি.এ ১২ তম বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষা গ্রহণ ও ২০১৫ সালের ৯ নভেম্বর চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করে। উক্ত ফলাফলের ভিত্তিতে ২০১৬ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি এন.টি.আর.সি.এ ১২ তম শিক্ষক নিবন্ধনে উত্তীর্ণ শিক্ষক নিবন্ধনধারীদের সর্বপ্রথম একক উপজেলা,জেলা ও জাতীয় মেধা তালিকা প্রকাশ করে। প্রকাশিত মেধাতালিকায় মোঃ জামাল হোসাইন রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলায় ১ম স্থান অর্জন করেন। জেলা ও উপজেলায় মেধাতালিকায় ১ম হয়েও তিনি শিক্ষক পদে নিয়োগ বঞ্চিত হন।

৬ টি শর্ত মেনে প্রাথমিক শিক্ষকদের জ্যেষ্ঠতার তালিকা প্রণয়নের নির্দেশ

১২ তম শিক্ষক নিবন্ধনধারীরা অনেক চেষ্টা করার পরেও নিয়োগ না পেয়ে কিছু সংখ্যক নিবন্ধনধারীদের নিয়ে ২০১৭সালের ১০ জুলাই মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগে রীট পিটিশন দাখিল করেন। দীর্ঘ শুনানির পরে ২০১৮ সালের ১২ ডিসেম্বর মহামান্য বিচারপতি নাইমা হায়দার ও মহামান্য বিচারপতি খিজির আহমেদের দ্বৈত বেঞ্চ ১২ তম বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধনধারীদের গেজেট ও পরিপত্রের আলোকে ৬০ দিনের মধ্যে রীট পিটিশনারদের একক নিয়োগের নির্দেশনা দিয়ে রায় প্রদান করেন। এন.টি.আর.সি.এ এর তৎকালীন চেয়ারম্যান জনাব আশফাক হোসেন ১২ তম রীট পিটিশানদের নিয়োগ প্রদান থেকে বিরত থাকেন। যা আদালত অবমাননার শামিল। বর্তমানে সারাদেশে সকল বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৫৭ হাজারের বেশি পদ শূন্য রয়েছে বলে জানা যায়। তাই বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক সংকটের মূহুর্তে মহামান্য হাইকোর্টের রায় বাস্তবায়নের লক্ষে ১২ তম শিক্ষক নিবন্ধনধারী রীট পিটিশনারদের দ্রুত নিয়োগের ব্যবস্থা করুণ। শিক্ষক নিয়োগে সরকারের স্বচ্ছ নিয়োগ পরিকল্পনা বাস্তবায়ন এবং শিক্ষক সংকট দূর করার জন্য মাননীয় শিক্ষামন্ত্রী, শিক্ষা সচিব, এন.টি.আর.সি.এ এর চেয়ারম্যান ও মাউশির মহাপরিচালক মহোদয়ের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

আরও পড়ুন:সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগে কোটা বাতিল চেয়ে রিট

-ডিবি আর আর।

ফেসবুকে লাইক দিন