নয় ভাই-বোনের মধ্যে দুই ভাই জেলা প্রশাসক, এক বোন এএসপি

চাকুরী

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্ক : দেশে নতুন করে ১১টি জেলায় জেলা প্রশাসক (ডিসি) নিয়োগ দিয়েছে সরকার। যাদেরকে নতুনভাবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, তার মধ্যে মোহাম্মদ কামরুল হাসান ও মোঃ আনোয়ার হোছাইন আকন্দ দু’জন আপন সহোদর।

এর মধ্যে মোহাম্মদ কামরুল হাসান হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক হিসেবে কর্মরত আছেন এবং তার আপন ছোট ভাই স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের উপ সচিব থেকে পদোন্নতি পেয়ে লক্ষ্মীপুরের জেলা প্রশাসক হয়েছেন।

১৭ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপন সুত্রে জানাগেছে; বিসিএস প্রশাসন ক্যাডারে উপসচিব পদমর্যাদার ১১ জন কর্মকর্তাকে পদায়ন করে। উক্ত প্রজ্ঞাপনে লক্ষ্মীপুরের জেলা প্রশাসক হিসেবে আনোয়ার হোছাইন আকন্দের নামও রয়েছে। বিসিএস-২২ ব্যাচ থেকে আসা এই কর্মকর্তা সর্বশেষ স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের উপ-সচিব হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

বর্তমান হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান, তিনি তার আপন ভাইয়ের জেলা প্রশাসক হিসেবে পদোন্নতি পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এরপূর্বে বাংলাদেশে আপন দুই সহোদরকে জেলার প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার কথা শোনা যায়নি।

জানাগেছে, এই দুই রত্নগর্ভা মায়ের সন্তানদের গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহ জেলা সদরে। তাদের উওভয়ের পিতার নাম কাশেম আলী। যিনি প্রথম জীবনে শিক্ষকতার মহান পেশায় নিযুক্ত ছিলেন এবং পরবর্তীতে রেল স্টেশনের মাস্টারি পদের চাকুরীতে যোগদেন।

তাদের মায়ের নাম সাজেদা খাতুন। কাশেম আলী সাজেদা দম্পতির মোট নয় সন্তানের মধ্যে ৫ জন ছেলে ও ৪ জন মেয়ে। যার মধ্যে ৬ জন প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছেন। এবং এই ৬ জনের মধ্যে চারজনই বিসিএস ক্যাডার।

২টি বিষয়ে গুরুত্বারোপ : ১৬ তারিখ পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি

যার মধ্যে বড় ভাই কামরুল হাসান হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক, এর পরের জন আনোয়ার হোসেন, লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক। এক ভাই রাজধানীর নিউরো সায়েন্স ইন্সটিটিউটের সহকারী রেজিস্ট্রার।

এক বোন মানিকগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার। এছাড়া আরো দু’জন বিসিএসে অংশ গ্রহণের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক সূত্রে জানা গেছে।

READ MORE  প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কবে, কিভাবে অনুষ্ঠিত হবে

শিক্ষা বিষয়ক খবর জানতে ’দৈনিক বিদ্যালয়’ অনলাইনে পড়ুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *