২রা আগস্ট, ২০২১ ইং, সোমবার, ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

প্রাথমিকের একই নিয়োগ আদেশে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের গ্রেডেশন নীতিমালা স্পষ্টিকরণ

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্ক : দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের পদোন্নতির সিদ্ধান্ত মোতাবেক গ্রেডেশন লিস্ট প্রস্তুত করে স্ব-স্ব উপজেলার সরকারি ওয়েব পোর্টালে আপলোড করছে উপজেলা শিক্ষা অফিস। এক্ষেত্রে অনেক উপজেলার দেওয়া খসড়া গ্রেডেশন তালিকায় বিভিন্ন ধরনের ভুল-ভ্রান্তি লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

ইতিমধ্যে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষকদের পদোন্নতি দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে শিক্ষকদের সম্মিলিত জ্যেষ্ঠ তালিকা প্রকাশের নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। গত ১৬ নভেম্বর, সোমবার প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে এ সংক্রান্ত নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

এবিষয়ে ৬টি শর্ত মেনে এই জ্যেষ্ঠ তালিকার খসড়া তৈরি করে যাচাই-বাছাইয়ের জন্য ওয়েবসাইটে প্রকাশ করতে দেশের সব শিক্ষা অফিসারদের যে নির্দেশ দেয়া হয়েছে তার ৫ নং শর্তটি নিয়ে আজকে আমাদের আলোচনা।

এর আগে জেনে নেওয়া যাক সেই শর্ত সমুহ কী ছিলঃ

১. বিদ্যমান ২০১৯ ইংরেজি সালের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালা অনুসরণ করতে হবে।

২. ২০১৯ ইং সালের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ বিধিমালার তফসিল বিধি ২ এর গ অনুযায়ী প্রধান শিক্ষক পদে পদোন্নতির যোগ্যতা সহকারী শিক্ষক পদে প্রশিক্ষণ প্রাপ্তসহ অন্তত মোটামুটি ০৭ বছর চাকুরীর অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

৩. ২০১১ ইং সনের নন-ক্যাডার কর্মকর্তা ও কর্মচারী ‘জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি’ বিধিমালার বিধি ৪.১ এর ক অনুসারে পূর্ববর্তী উন্মুক্ত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকরা পরবর্তী উন্মুক্ত নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকরা সিনিয়রিটি পাবেন।

৪. উন্মুক্ত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির ভিত্তিতে পর্যায়ক্রমে একাধিক নিয়োগ আদেশ জারি হলে নন-ক্যাডার কর্মকর্তা ও কর্মচারী “জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি” বিধিমালা -২০১১ এর বিধি ৪.১ এর ‘খ’ এ যথার্থভাবে অনুসারে তালিকা না থাকলে পূর্বে জারি বা আদেশে অন্তর্ভুক্ত শিক্ষকরা পরে জারি করা আদেশের অন্তর্ভুক্ত শিক্ষকদের তুলনায় জ্যেষ্ঠতা তালিকার উপরে গণ্য হবেন।

৫. একই নিয়োগ আদেশে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের মধ্যে মেধাতালিকা না থাকলে নন-ক্যাডার কর্মকর্তা ও কর্মচারী “জ্যেষ্ঠতা ও পদোন্নতি” বিধিমালা-২০১১ এর বিধি ৪.১ এর ‘খ’ অনুসারে তাদের পারস্পরিক জ্যেষ্ঠতা বয়সের জ্যেষ্ঠতার ভিত্তিতে নির্ধারিত হবে।

এটি স্পষ্ট করার জন্য একটি উদাহরণ এখানে আনা প্রয়োজন। ধরে নিনি, একই নিয়োগে জুয়েল ও রায়হানার নিয়োগ ২০০৯ সালে। এর মধ্যে জুয়েলের নিয়োগ ২০০৯ সালের ০৭ মে বৃহস্পতিবার এবং রায়হানার নিয়োগ একই সালের ১০ ই মে তারিখে। এক্ষেত্রে যেহেতু একই নিয়োগ আদেশে ২ জনের চাকুরী। সেহেতু কে আগে যোগদান করল, কে পরে যোগদান করল এটি এখানে গন্য করার বিষয় নয়। এখানে যেহেতু একই নিয়োগ আদেশে চাকুরী সেহেতু যার বয়স বেশি সে সিনিয়র হিসাবে গ্রেডেশন লিস্টে আগের সিরিয়ালে নাম উঠবে।

এভাবেই গ্রেডেশন লিস্ট এবার হচ্ছে বলে জানান কয়েকটি উপজেলার সহকারী শিক্ষা অফিসার ও একটি জেলা শিক্ষা অফিসের হেড ক্লার্কগণ। তারা বলেন সর্বশেষ নীতিমালা অনুযায়ী এভাবেই আমাদের গ্রেডেশন করা হচ্ছে।

মোঃ বদরুল আলম (মুকুল), সভাপতি, বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতি তিনি এবিষয়ে বলেন, কিসের ভিত্তিতে এমন গ্রেডেসন লিষ্ট হচ্ছে আমি জানি না! যে চাকুরীতে আগে যোগদান করল সে কেন সিনিয়র হবে না?

এছাড়া এবিষয়ে প্রকাশিত গ্রেডেশন লিস্টে যদি নীতিমালা লঙ্ঘন হয়, সেক্ষেত্রে উক্ত উপজেলা শিক্ষা অফিসে লিখিত অভিযোগ জানালে তারা তা ঠিক করে দিবেন বলে জানা গেছে।

৬. প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের রাজস্ব বাজেটের পদে নিয়মিতকরণ ও জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ বিধিমালা-২০০৫ ইংরেজি সনের অধীনে নিয়মিত করা শিক্ষকদের জ্যেষ্ঠতা ওই বিধিমালার বিধি ৬.১ এর অনুসারে নিয়মিতকরণের তারিখ থেকে গণনা করতে হবে।

প্রাথমিক শিক্ষকরা নগদ পোর্টালে তথ্য এন্ট্রি করবেন যেভাবে

প্রাথমিকের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কবে, কিভাবে অনুষ্ঠিত হবে

৮০ হাজার পদ শুন্য মাধ্যমিকে : নিষেধাজ্ঞা শেষে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি আসতে পারে

শিক্ষার খবর জানতে dainikbidyaloy.com বা বাংলায় ‘দৈনিক বিদ্যালয়’ লিখে সার্চ দিন। শিক্ষার প্রিয় খবর ‘দৈনিক বিদ্যালয়’ অনলাইন পত্রিকার সাথে থাকুন, শিক্ষার খবরের সাথে থাকুন।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন