২১শে এপ্রিল, ২০২১ ইং, বুধবার, ৮ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

ইএফটিতে বেতন পেতে চলেছেন যে উপজেলার শিক্ষকরা

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্ক :: সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ফেব্রুয়ারি মাসের বেতন ও ভাতা জিটুপি বা গভর্নমেন্ট টু পারসন পদ্ধতিতে ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার (ইএফটি) এর মাধ্যমে প্রদান করার সকল প্রস্ততি সম্পন্ন হয়েছে শেরপুর জেলার নলিতাবাড়ি উপজেলার।

এবিষয়ে নালিতাবাড়ী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ তৌফিকুল ইসলাম বলেন, পুরো বিষয়টি অনলাইনে অটোমেশন পদ্ধতিতে আনা ছিল অত্যন্ত একটি জটিল কাজ। আমরা নিবিড় তদারকির মাধ্যমে এবং জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ফেরদৌসী বেগমের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে সেই জটিল কাজটি অল্প সময়ের মধ্যে সমাধান করে উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষকদের চাকুরিকালীন সকল সুবিধা প্রদানে ইএফটি পদ্ধতি চালু করতে সক্ষম হয়েছি। চলতি ফেব্রুয়ারি মাস থেকেই উপজেলার সকল প্রাথমিক শিক্ষক এই পদ্ধতিতে বেতন ও ভাতা পাবেন।

তিনি আরও জানান ইতোমধ্যেই প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন ও ভাতা সাবমিশন করা হয়েছ। এখন ইএফটি পদ্ধতিতে বাটনে একটি চাপ দিলেই শিক্ষকদের বেতনভাতা তাদের স্বস্ব একাউন্টে পৌঁছে যাবে।

এবিষয়ে নালিতাবাড়ী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মাসুদ কবির প্রক্রিয়াটি দ্রুত চালু করায় উপজেলা শিক্ষা অফিসার সহ উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে উপজেলার সকল প্রাথমিক শিক্ষকের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন এবং সরকার কর্তৃক গৃহীত এই পদ্ধতিকে স্বাগত জানিয়েছেন। 

উল্লেখ্য, ইএফটিতে বেতন প্রদানের হলে পূর্বের ম্যানুয়াল পদ্ধতি বেতন প্রস্তুত করতে বিভিন্ন অফিসের দারস্থ হতে হত যেমন উপজেলা শিক্ষা অফিস ঘুরে তারপর রকাউন্স অফিস এর পর বেতন যেত ব্যাংকে। এক্ষেত্রে অনেক উৎসবের মাসে কর্মকর্তা – কর্মচারীরা ঠিক সময়ে বেতন পেতনা। এই জটিলতা আর থাকবে না। এখন থেকে দেশের শিক্ষক কর্মচারীরা মাসের ১ তারিখেই বেতন পেতে পারবেন। এছাড়া কর্মচারীদের পেনশন প্রদানের পুরো প্রক্রিয়াই হবে সহজ, স্বচ্ছ ও দ্রুত। এবং শিক্ষক ও কর্মচারীদের ইনক্রিমেন্ট, অর্জিত ছুটি, ভ্রমণ তথ্য, সার্ভিস রেকর্ডসহ সকল তথ্য এই ডাটাবেসে থাকবে। এরফলে ইএফটি পূরণকৃত সকল কর্মচারী অবসরে যাওয়ার দ্রুত সময়ের মধ্যেও পাবেন পিআরএল ও পেনশনের যাবতীয় সুবিধা।

তথ্যসূত্র নালিতাবাড়ী উপজেলা শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা গেছে,এখন থেকে স্বল্প সময়ে মিলবে শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা। শিক্ষকদের বেতন-ভাতা, পেনশন প্রদানের পুরো প্রক্রিয়াটিই হবে সহজ, স্বচ্ছ ও দ্রুত।  শিক্ষকদের ইনক্রিমেন্ট, অর্জিত ছুটি, ভ্রমণ তথ্য, সার্ভিস রেকর্ডসহ সব তথ্য ইএফটির ডাটাবেইসে থাকবে। ফলে মুহূর্তেই মিলবে সকল পাওনাদি সহ অবসরে যাওয়ার যাবতীয় তথ্য। এমনকি অবসরে যাওয়ার দ্রুত সময়ের মধ্যে পাবেন পেনশন সুবিধা।

দ্রুতই বিদ্যালয় খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত : প্রতিমন্ত্রী

আইবাস++ সফটওয়্যার এর কাজ কী ও ইএফটি সহ এর সুবিধা সমুহ

উল্লেখ্য, এর আগে প্রাথমিক শিক্ষকদের ইফটিতে বেতন দিতে যাচ্ছে এমন কোন উপজেলার নাম শোনা যায় নি।

-ডিবি আর আর।

ফেসবুকে লাইক দিন