১৭ই অক্টোবর, ২০২১ ইং, রবিবার, ২রা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের জন্য চালু হচ্ছে প্রোগ্রামিং ও কোডিং

ছবি (এডিটেড) : প্রতিমন্ত্রী, জুনাইদ আহমেদ পলক

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্ক :: ২২ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার ‘ইন্টারন্যাশনাল আইসিটি গার্লস ডে’ উপলক্ষে আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে অনলাইনে যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, আগামী শিক্ষাবর্ষ থেকেই প্রাথমিক পর্যায়ে কোডিং ও প্রোগ্রামিং ন্যাশনাল কারিকুলাম অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

মন্ত্রী তার ভার্চুয়াল বক্তব্যে আরও বলেন, আধুনিক বিশ্বে নিজেদের এগিয়ে নিতে প্রাথমিক পর্যায় থেকেই অংক, ইংরেজি শিক্ষার পাশাপাশি প্রোগ্রামিং ও কোডিং শিক্ষা গ্রহণ খুবই জরুরি। তাহলে কিশোর-কিশোরীরা তথ্যপ্রযুক্তিতে সফলতা বয়ে আনতে সক্ষম হবে। এছাড়া এ বিষয়ে শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করতে শিক্ষক অভিভাবকদের বিশেষ ভূমিকা পালন করতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী পলক তার বক্তব্যে বলেন, প্রযুক্তি শিক্ষায় শিক্ষার্থীদের শিক্ষিত করে তোলার জন্য আগামী ২০২৫ খ্রিষ্টাব্দের মধ্যে দেশে আরও ৩৫ হাজার শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপন করা হবে। যার মাধ্যমে কিশোর-কিশোরীরা সরাসরি আইসিটি শিক্ষায় নিজেদের দক্ষ করে তুলতে পারবে। 

জুনাইদ আহমেদ বলেন, যারা এসএসসি ও এইচএসসি পাস, তাদের জন্য আইটি নির্ভর কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে সারাদেশে মোট ৬৪ টি শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং এন্ড ইনকিউবেশন সেন্টার প্রতিষ্ঠা করা হচ্ছে।

৩০ দিনের মধ্যে বেসরকারি শিক্ষক নিয়োগের ফলাফল

এক সপ্তাহের মধ্যে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জন্য সার্বিক পরিকল্পনা আদেশ আসছে

ঈদের আগেই শিক্ষার্থীদের জন্য উপবৃত্তি ও জামা-জুতা কেনার টাকা

এছাড়া মন্ত্রী ইন্টারন্যাশনাল আইসিটি গার্লস ডে কার্যকর ও সার্থক করে তুলতে সরকার, ইন্ডাস্ট্রি ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমুহকে সঠিকভাবে দায়িত্ব পালনের উপর তাগিদ দেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সৈয়দ আলমাস কবির, ওরাল মারফি, ব্রাক প্রতিনিধি কে এম মোর্শেদ, ওয়াহেদ শরীফ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক লাফিফা জামাল, গ্রামীণফোনের হিউম্যান রিসোর্স প্রধান তানভীর হোসেন সহ আরো বিশিষ্ট আইটি উদ্যোক্তারা।

-ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন