২০শে জুন, ২০২১ ইং, রবিবার, ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

চীনা রকেটের খণ্ডাংশের ছবি ধরা পড়ল : কোথায় আছড়ে পড়তে পারে?

চীনা রকেট 'লং মার্চ ৫বি'

ডিবি ডেস্ক :: ইতালির একজন জ্যোতিঃপদার্থবিদ মহাকাশে চীনের সেই নিয়ন্ত্রণহীন রকেটের বিশাল আকৃতির ধ্বংসাবশেষের ছবি তুলতে সক্ষম হয়েছেন।

ধারণা করা হচ্ছে ‘লং মার্চ ৫বি’ নামক রকেটটির ধ্বংসাবশেষ ৮মে, শনিবার পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করবে। কিন্তু বিজ্ঞানীরা ঠিক কোন সময়ে এবং কোন অঞ্চলে এটি পতিত হতে পারে তা নির্দিষ্ট করে বলতে এখনও সক্ষম হননি।

তারা জানান এ ধরণের পূর্বাভাস মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে দেয়া সম্ভব হয়। কারণ হিসাবে উল্লেখ করেন, আহ্নিক গতির ফলে বায়ুমণ্ডলে প্রবেশের পর এর পতন উল্লেখযোগ্য মাত্রায় পরিবর্তিত হয়।

এবিষয়ক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ২৩ টন ওজনের এই রকেটটি বায়ুমণ্ডলে পতিত হওয়ার সময়েই টুকরো টুকরো হওয়া শুরু করবে এবং এটির অধিকাংশই আগুনে পুড়ে যাবে এবং পুড়ে যাওয়ার পর বাকি অংশগুলোই পৃথিবীর ভূমিতে পড়বে। ধারণা করা হচ্ছে, পৃথিবীর ৭০ ভাগই সাগর হওয়ায় এটি সাগরে পড়ার সম্ভাবনাই বেশি, হ্যা, তবে এটি অবশ্যই ধারণা মাত্র।

ইতালীর জ্যোতিঃপদার্থবিদ গিয়ানলুকা মাসি অনলাইনে একটি ভার্চুয়াল টেলিস্কোপ প্রকল্প পরিচালনা করেন এবং তিনি ১৭ ইঞ্চির প্যারমাউন্ট রোবটিক টেলিস্কোপ ব্যবহার করে এই রকেটের ০.৫ সেকেন্ড এক্সপোজারের একটি ছবি তুলতে সক্ষম হন। সেই তোলা ছবিটির বর্ণনায় তিনি লিখেছেন, এই ছবিটি তোলার সময় রকেটটি আমাদের টেলিস্কোপ থেকে মাত্র ৭০০ কিলোমিটার দূরে ছিল এবং সে সময় সূর্য ছিল দিগন্ত থেকে কয়েক ডিগ্রি নিচে। সেজন্য আকাশ ভীষণ উজ্জ্বল ছিল।

উল্লেখ্য, গত ২৮ এপ্রিল তারিখে কক্ষপথে স্থাপনের উদ্দেশ্যে ইংরেজি টি আকারের মহাকাশ স্টেশনের মূল মডিউলটি উৎক্ষেপণ করতে ‘লং মার্চ ৫বি’ নামক রকেটটি ব্যবহার করা হয়। কিন্তু সেই রকেটটি মহাকাশ স্টেশন থেকে আলাদা হওয়ার পর কক্ষপথ থেকে বিচ্যুত হয়ে যায়। এখানে আরও উল্লেখ্য, আগামী ২০২২ সালের মধ্যে নিজস্ব মহাকাশ স্টেশন প্রস্তুত করে ফেলতে চায় চীন। এজন্য এধরণের আরও ১০টি রকেট উৎক্ষেপণ তাদের প্রয়োজন হবে বলে জানা গেছে।

নিউজ সূত্র: বিবিসি, স্পেস ডট কম ও এএফপি। -ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন