২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং, রবিবার, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দুটি সমস্যার সমাধান হলে যত দ্রুত সম্ভব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলবে

ছবি : ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

ডিবি ডেস্ক :: দেশে করোনা ভাইরাসের কারণে দীর্ঘদিন বন্ধ থাকায় অনেক কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামোগত নানা ধরনের সমস্যা দেখা দিয়েছে। এসকল সমস্যা সমাধানে ইতিমধ্যে কাজ শুরু হয়েছে।

এছাড়া একই সঙ্গে দেশের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের করোনার টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা করছে সরকার।

এই অবকাঠামো ও টিকা দেওয়ার কাজ শেষ হলে করোনা পরিস্থিতির অবস্থা দেখে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার পরিকল্পনা করছে দেশের সরকার।

১৭ মে, সোমবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। তিনি গণভবন থেকে এবং সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীরা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠকে যোগ দেন। এই বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদসচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এসব কথা জানান।

সচিব বলেন, সুবিধাজনক পরিস্থিতিতে এবং বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ছেলে-মেয়েদের টিকা দেওয়া গেলেই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে।

তিনি আরও বলেন, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪০টি আবাসিক হলের সংস্কার কাজ চলছে।

উল্লেখ্য, সরকারের সর্বশেষ ঘোষণা অনুযায়ী, করোনা মহামারির কারণে দেশের সকল বিশ্ববিদ্যালয় ও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের চলমান ছুটি আগামী ২৯ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে করোনার কারণে ১৪ মাস ধরে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। যারফলে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের থেকে উচ্চশিক্ষা পর্যন্ত কোটি কোটি শিক্ষার্থী বড় ধরনের সমস্যায় পড়েছে। এছাড়া অস্বস্তিতে আছেন অভিভাবকরাও। এর আগে আগামী ২৩ মে থেকে স্কুল-কলেজ এবং ২৪ মে থেকে বিশ্ববিদ্যালয় খুলে দেওয়ার একটি সিদ্ধান্ত নিয়ে রেখেছিল সরকার। কিন্তু দেশের করোনার উর্ধমুখি চাপ একটু কমে আসলেও ভারতীয় ভেরিয়েন্ট নিয়ে নতুন আতঙ্ক তৈরি হওয়ায় ছুটি আরো দুই সপ্তাহ বাড়িয়ে ২৯ মে পর্যন্ত করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ভারতীয় ভেরিয়েন্টে একজন মারাও গেছে গতকাল।

এখানে উল্লেখ্য, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় খুললে সাথে সাথে মাধ্যমিক ও প্রাথমিক বিদ্যালয় সমুহ খোলার প্রত্যাশা করে সচেতন অভিভাবক, ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষকরা।

-ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন