২০শে জুন, ২০২১ ইং, রবিবার, ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

স্কুল খোলার পর বড় ধরনের পরিবর্তন আনা হবে শিক্ষা কার্যক্রমে

জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড : এনসিটিবি

স্কুল খুললেও যেভাবে চলবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের লেখাপড়ার কার্যক্রম

ডিবি ডেস্ক :: দেশে ৪ কোটির উপরে শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের অপেক্ষার সময় যেন শেষ হচ্ছে না। আশার কথা হল দেশে করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রভাব ধীরে ধীরে কমে আসতে শুরু করেছে। যদি এভাবে চলতে থাকে, অবে আগামী জুন মাসেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পরিকল্পনা করছে সরকার। এজন্য পুরোদমে চলছে সর্বস্তরে প্রস্তুতি চলছে।

সর্বশেষ খবর অনুযায়ী করোনার সংক্রমণের হার ৫% এ নেমে আসলে বিদ্যালয় খোলা হবে। এই বিদ্যালয় সমহ দীর্ঘদিন পরে খোলার পর স্কুল-কলেজ সমুহ কীভাবে শিক্ষা কার্যক্রম চালাবে, তারও একটি রূপরেখা ইতিমধ্যে প্রস্তুত করা হয়েছে।

দেশের শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সমুহ খোলার পর শিক্ষা কার্যক্রমে বড় ধরনের পরিবর্তন আনা হবে।

তারা বলছে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা মানেই শিক্ষার্থীদের শ্রেণি কার্যক্রমে উপস্থিতি বাধ্যতামূলক করা হবে না। এক্ষেত্রে কেউ যদি শ্রেনি কার্যক্রমে উপস্থিত না হতে চায়, তাহলে তার জন্য অনলাইন ক্লাসের ব্যবস্থা করা হবে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পর অফ লাইনে ও অনলাইনে এই দুভাবেই চলবে শিক্ষা কার্যক্রম। তবে অনলাইনের ক্ষেত্রে এসব শ্রেণি কার্যক্রম টেলিভিশনেও সম্প্রচার করা হবে।

এছাড়া দীর্ঘ সময় ধরে প্রায় ১৫ মাস শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ। এর ফলে শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা তো বটেই, মানসিকভাবেও অনেক দূর পিছিয়ে গেছে শিক্ষার্থীরা। সেজন্য স্কুল খোলার পরপরই পরীক্ষা নেওয়ার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের নতুন কোনো চাপ দিতে চায় না কর্তৃপক্ষ।

এজন্য চলতি বছরের সকল সাময়িক ও শ্রেণি পরীক্ষা বাতিল করার কথা ভাবছে মন্ত্রণালয়। যার পরিবর্তে প্রত্যেক সপ্তাহে শিক্ষার্থীদের গাঠুনিক মূল্যায়ন বা ধারাবাহিক মূল্যায়ন স্বরুপ একটি করে অ্যাসাইনমেন্ট তৈরি করতে দেওয়া হবে।

এবং এই অ্যাসাইনমেন্টে মূল্যায়ন করে পরবর্তী ক্লাসে উঠার জন্য যোগ্যতা নির্ধারণ করা হবে প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ মাধ্যমিক ও স্তরের শিক্ষার্থীদের। এনসিটিবি বা জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড সূত্র বলছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার পর কীভাবে কী করতে হবে, পুরো বিষয়টির একটা প্রাথমিক খসড়া চুড়ান্ত করেছে তারা।

উল্লেখ্য : দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ আজ অবধি একবছর ২ মাস ৬ দিন বন্ধ আছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছুটি বাড়বে : আসতে হবে ৫ শতাংশ

মাধ্যমিকের ক্লাস হচ্ছে কিনা অনলাইনে মনিটরিংয়ের নির্দেশ

কর্মচারী, কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের বেতন বৈষম্য : কারোর বেড়েছে ৪২৫০ কারোর ৬২ হাজার

ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন