২০শে জুন, ২০২১ ইং, রবিবার, ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

প্রাথমিক শিক্ষকদের ১৩তম গ্রেডে বেতন ফিক্সেশন সহজ করতে উদ্যোগ গ্রহন

প্রাথমিক শিক্ষকদের ১৩ গ্রেডে বেতন ফিক্সেশন

ডিবি ডেস্ক :: প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের ১৩তম গ্রেডের কাজ এখন চলছে। কিছু উপজেলার শিক্ষকরা গত ঈদুল ফিতরে বেতন পেয়েছেন ১৩তম গ্রেডে। আবার বেশির ভাগ উপজেলা এখনো বেতন পায়নি। সিজিএ বা মহা হিসাব নিয়ন্ত্রকের অফিস এটাকে জনবল ঘাটতি ও অর্থ বছর সমাপ্তি হিসাবে কারণ দর্শিয়েছে। যদিও অনেক উপজেলায় ভিন্ন কারণে বেতন গ্রেড উন্নতি করণে ফিক্সেশন আটকে আছে।

এবার হিসাব মহা নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় দেশের প্রাথমিক শিক্ষকদের ১৩তম গ্রেডে বেতন ফিক্সেশন জটিলতায় ১৩তম গ্রেডে বেতন নির্ধারণ অপশনটি অনলাইনে পে-ফিক্সেশন ওয়েব সাইটে এড বা যোগ করতে সুপারিশ করেছে। যার ফলে শিক্ষকরা নিজেরাই এই ফিক্সেশনের কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন।

আরও পড়ুন :প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষার্থীদের টিফিনে যা খেতে দেওয়া হবে

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, কর্মচারীদের শুমারির তথ্য পূরণের আদেশ

উপবৃত্তি বাবদ ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা ছাড় : শিক্ষার্থীরা টাকা পাবে যখন

প্রাথমিক শিক্ষকদের যে তথ্য পূরণ পূর্বক অধিদপ্তরে পাঠাতে বলা হয়েছে

জুনে পুলিশে বিশাল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি : শিক্ষাগত ও শারীরিক মাপে পরিবর্তন আসছে

সেজন্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত সহকারী শিক্ষকদের ১৩তম গ্রেডে উন্নীত স্কেলে বেতন নির্ধারণে করণীয় সম্পর্কে মতামত প্রদান করল হিসাব মহানিয়ন্ত্রকের দপ্তর-সিজিএ।

এবিষয়ে গত ১ জুন, মঙ্গলবার সিজিএর অতিরিক্ত হিসাব মহানিয়ন্ত্রক, হিসাব ও পদ্ধতি শাখার মো. মামুন-উল-মান্নান কর্তৃক স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি পত্র জাতীয় প্রকল্প পরিচালক, SPFMSP, প্রকল্প ও অতিরিক্ত সচিব অর্থ মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পাঠানো হয়েছে।

যাতে বলা হয়েছে; সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের উন্নীত স্কেলে বা ১৩ তম গ্রেডে বেতন নির্ধারণে বর্তমানে মাঠ পর্যায়ের হিসাবরক্ষণ অফিস হতে অনলাইনে দাখিলের জন্য ১ জুলাই ২০২০ তারিখের ইনক্রিমেন্ট বাতিল, উন্নীত গ্রেডের আদেশ, শিক্ষকদের শিক্ষা সনদ আপলোড করার পর উপজেলা বা থানা শিক্ষা অফিসে যাচাই এর জন্য পাঠাতে হয়। এরপর উপজেলা শিক্ষা অফিস হতে যাচাইয়ের পর আবারো হিসাব রক্ষণ অফিসকে শিক্ষকদের চাকুরী বই (সার্ভিসবুক) প্রতিপাদন, বেতন নির্ধারণী অনুমোদন ও ১ জুলাই ২০২০ তারিখের ইনক্রিমেন্ট যোগ করতে হয়।

উপজেলা হিসাব রক্ষণ অফিসের চলতি অর্থ বছরের শেষের দিকে স্বল্প জনবল দিয়ে কাজটি শেষ করা কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। সেজন্য এ অবস্থায় জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫ সালের মত শিক্ষকদের ১৩ তম গ্রেডে বেতন নির্ধারণ অপশনটি www.payfixation.gov.bd এর ওয়েবসাইটে যোগ করলে সংশ্লিস্ট শিক্ষক অথবা শিক্ষা অফিস উন্নীত গ্রেডের আদেশ, শিক্ষা সনদ আপলোডসহ বেতন নির্ধারণী দাখিল করতে পারবেন।

এছাড়া অনলাইনে দাখিলের পর হিসাব রক্ষণ অফিসের পক্ষে সার্ভিস বুক প্রতিপাদন, বেতন নির্ধারণী অনুমোদন ও ১ জুলাই ২০২০ তারিখের ইনক্রিমেন্ট যোগ করার কাজ সহজ হবে বলে সিজিএ মনে করঅছে। সেজন্য সব কিছু বিবেচনা করে সংশ্লিস্ট www.payfixation.gov.bd ওয়েবসাইটে শিক্ষকদের ১৩ তম গ্রেডের অপশনটি যুক্ত করার জন্য পত্রে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন