২০শে জুন, ২০২১ ইং, রবিবার, ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

১৬ সেট প্রশ্নে যেভাবে নেওয়া হবে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

dpe : প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা

ডিবি ডেস্ক : : দেশে সর্বশেষ প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয় ১৯ অক্টোবর ২০২০ তারিখে। যে বিজ্ঞপ্তির আবেদন শুরুর তারিখ ছিল ২৫ অক্টোবর ২০২০ সকাল ১০:৩০ হতে এবং আবেদনের শেষ তারিখ ছিল ২৪ নভেম্বর ২০২০ রাত্র ১১:৫৯ মিনিট পর্যন্ত।

সেই হিসাবে ৬ মাস ১৭ দিনের বেশি সময় অতিবাহিত। এত দিন আগে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার আবেদন শেষ হলেও করোনার কারণে পরীক্ষা আয়োজন করতে পারেনি প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ( dpe)।

কবে হবে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা? চাতক পাখির মত তাকিয়ে আছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের এই নিয়োগ পরীক্ষার জন্য দেশের ১৩ লক্ষের অধিক বেকার যুবক-যুবতীরা। কিন্তু এত সংখ্যক পরীক্ষার্থীদের কী একসাথে, একদিনে পরীক্ষা আয়োজন সম্ভভ!

সেজন্য ধাপে ধাপে এই পরীক্ষা আয়োজনের চিন্তাভাবনা করছে অধিদপ্তর। কয়েকটি ধাপে পরীক্ষা হওয়ায় ১৬ সেট প্রশ্ন তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

এবিষয়ে ডিপিই সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতির কারণে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ আছে। যেকারণে নিয়োগ পরীক্ষা আয়োজন করতে পারছে না তারা। এছাড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর একসঙ্গে ১৩ লক্ষ প্রার্থীর পরীক্ষা আয়োজন করা কষ্টসাধ্য। একারণে কয়েকটি ধাপে পরীক্ষা নিতে চায় তারা।

ডিপিই সুত্র থেকে আরও জানা গেছে, পরীক্ষা আয়োজনের জন্য এবার বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের-বুয়েট এর সহযোগিতা নিচ্ছে ডিপিই। এজন্য ইতোমধ্যে এ বিষয়ে একটি চুক্তিও স্বাক্ষর হয়েছে।

এবার বুয়েটের কারিগরি সহায়তায় নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, সঠিক প্রার্থী চিহ্নিত করা এবং লটারীর মাধ্যমে কেন্দ্র সচিব নির্বাচন করা হবে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহাম্মদ মনসুরুল আলম জানান, প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার সকল প্রস্তুতি ইতিমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা পরীক্ষা নিতে প্রস্তুত। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সমুহ খোলার পর খুব অল্প সময়ের মধ্যে পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হবে।

মনসুরুল আলম আরও বলেন, এই নিয়োগ পরীক্ষা সংক্রান্ত কারিগরি সহায়তার জন্য আমরা বুয়েটের সাথে একটি চুক্তি করেছি। এছাড়া নির্দিষ্ট সফটওয়্যারের মাধ্যমে রেজাল্ট প্রকাশ করতে সফটওয়্যার ও আপডেট করা হয়েছে। আমরা কয়েকটি ধাপে পরীক্ষা আয়োজন করার চিন্তাভাবনা করছি। এলক্ষে প্রশ্নের ১৬টি সেট তৈরির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও কলেজের উপবৃত্তির টাকা বাড়ছে : আরো কিছু সুখবর

যে কারণে গ্রেডেশন সফটওয়্যারে বহিরাগত অপশন বাতিলের দাবি প্রাথমিক শিক্ষকদের

শিক্ষকদের যাতে হয়রানির শিকার না হতে হয় : অধিদপ্তরের নির্দেশনা

প্রাথমিকে বহিরাগতদের সিনিয়রিটি ও চলতি দায়িত্ব বিষয়ে ডিজির বক্তব্য

উল্লেখ্য, সারাদেশের সব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩২ হাজারের বেশি শিক্ষক নিয়োগের আবেদন শুরু হয় গত ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে। এতে দুই ধাপে নিয়োগ প্রার্থীদের আবেদন পত্রের ভুল সংশোধনের সুযোগ দেওয়া হয়। এছাড়া এবার মোট ১৩ লক্ষ ৫ হাজার প্রার্থী আবেদন করেছে। কিন্তু তাদের নিয়োগ পরীক্ষা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহ দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ খোলা না হলে অনুষ্ঠিত হবে না, যা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহা পরিচালক কর্তৃক ঘোষিত। অন্যদিকে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক তথা সংক্রমণের হার ৫% এ না আসা পর্যন্ত করোনা বিষয়ক জাতীয় পরামর্শক কমিটি বিদ্যলয় গুলো খোলার পরামর্শ দেবে বলে মনে হয় না। যদিও শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, আসন্ন ঈদুল ফিতরের পরে সকল ধরনের বিদ্যালয় খোলা হবে।

ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন