এখন থেকে বেতন বন্ধ করতে পারবে না শিক্ষা অফিসারেরা

অধিদপ্তর

ডিবি ডেস্ক :: এখন থেকে শিক্ষকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠলেই বা কোনো অনিয়মের জন্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বেতন বন্ধ করতে পারবেন না উপজেলা শিক্ষা অফিসারেরা।

তবে অনিয়মের বিষয়ে শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ববস্থা গ্রহণ করতে হবে। এক্ষেত্রে শিক্ষকদের বা কোন কর্মকর্তা-কর্মচারীর বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে দেরি করা হলে উল্টো নিয়ন্ত্রণকারী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

এবিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে নির্দেশনা দিয়ে পরিপত্র ও জারি করা হয়েছে।

এবিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন ভাতা দেওয়ার জন্য আয়ন বায়ন কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করেন উপাজেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা। কিন্তু এক্ষেত্রে অভিযোগ আছে, শিক্ষকদের হয়রানি করার জন্য, অনেক ক্ষেত্রে বেশি কিছু পাওয়ার আশায় মিথ্যা অভিযোগ ডিপিইও এর অনুমতি সাপেক্ষে শিক্ষকদের বেতনভাতা বন্ধ করেন উপজেলা শিক্ষা অফিসাররা।

অনেক ক্ষেত্রে এর উল্টাটা করতে দেখা যায়, কোন শিক্ষক অপরাধ করলেও তাদের কাছ থেকে অনৈতিক সুবিধা নিতে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ঠিক সময়ে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয় না। এমন কোন পরিস্থিতি যথা অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে কাল ক্ষেপণ করতে, যে কর্মকর্তা কাল ক্ষেপণ করবেন; তার বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন অধিদপ্তর।

এবিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর জানায়, অধিদপ্তরের মে মাসের মাসিল সমন্বয় সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। সেই সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, যা পরিপত্র আঁকারেও এসেছে।

তাতে বলা হয়, “সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক কর্তৃক বিভিন্ন অনিয়মের প্রেক্ষিতে ডিডিও কর্তৃক শিক্ষকদের বেতন ভাতাদি বন্ধ করা যাবেনা। অনিয়ম সংক্রান্ত বিষয়সমূহ নিষ্পত্তির লক্ষ্যে শিক্ষকদের বিরূদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে (disciplinary action) নিষ্পত্তি করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।”

আরও পড়ুন : শিক্ষকদের গুগল মিটে নিয়মিত ক্লাস নিয়ে বৃহস্পতিবার তথ্য আপলোড করার নির্দেশ

টাইমস্কেলের টাকা ফেরত না দিতে ৪৯ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের আপিল

READ MORE  সকল শিক্ষককে বিদ্যালয়ে উপস্থিত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়নি

পদোন্নতি জটিলতায় প্রাথমিকের বহিরাগত শিক্ষকের খোলা চিঠি

এবিষয়ে আরো জানা গেছে, উক্ত সভার এ সিদ্ধান্তগুলো জানিয়ে বিভাগীয় উপপরিচালকদের গত ১৫ জুন এ সংক্রান্ত চিঠি বিভাগীয় উপপরিচালকদের পাঠানো হয়েছে। সাথে সাথে জেলা ও উপজেলা শিক্ষা অফিসে বিষয়টি জানিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে। 

এবিষয়ে শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি শামসুদ্দিন মাসুদের সাথে ‘দৈনিক বিদ্যালয়’ থেকে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “অধিদপ্তর কর্তৃক শিক্ষকদের হয়রানি বন্ধের সকল সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানাই।”

ডিবি আর আর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *