২৩শে অক্টোবর, ২০২১ ইং, শনিবার, ৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

এবারও হচ্ছে না প্রাথমিক, ইবতেদায়ী, জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা : প্রমোশন দেওয়া হবে যেভাবে

এবারও হচ্ছে না প্রাথমিক, ইবতেদায়ী, জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা : প্রমোশন দেওয়া হবে যেভাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সার্বিক করোনা পরিস্থিতি এবং করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি বিবেচনায় এবারও প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা হচ্ছে না। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক এই পরীক্ষা বাতিলের খসড়া সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে। সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ের সম্মতির পর এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত প্রকাশ করা হবে। এ সংক্রান্ত সারসংক্ষেপ শিগগিরই প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আবার এরই মধ্যে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ইঙ্গিত দিয়েছেন, এবারের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) এবং সমমান পরীক্ষাও এবার হবে না। করোনা পরিস্থিতির কারণে বিগত শিক্ষাবর্ষের প্রাথমিক ও এবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী এবং জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা চারটি নেয়া হয়নি। এসব শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পরবর্তী শ্রেণিতে অটো প্রমোশন দেওয়া হয়। গত বছর এ ব্যাপারে আগস্টে সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও অতীত অভিজ্ঞতা এবং বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় এগ্রিম সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে বলে জানানো হয়। তবে এবার আর অটো প্রমোশন দেওয়া হয়ে না। পরীক্ষা না নেয়া হলেও ছাত্র-ছাত্রীদের শিখন ঘাটতি পূরণের টেলিভিশন ও বেতারের মাধ্যমে পাঠদানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। পরে গুগলমিটের মাধ্যমে শিক্ষকদের ক্লাস নেওয়ার নির্দেশনাও জারি হয়। তাছাড়া মাধ্যমিক পর্যায়ে চালু আছে এ্যসাইনমেন্ট ভিত্তিক মূল্যায়ন প্রক্রিয়া। এছাড়াও জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা একাডেমি (ন্যাপ) এর জারিকৃত পাঠ পরিকল্পনা যুক্ত করা হয়েছে বিকল্প শিক্ষাদান প্রক্রিয়া। নির্দেশনা মতে, শিক্ষক সপ্তাহে একদিন শিক্ষার্থীর বাড়িতে গিয়ে পড়া বুঝিয়ে দিয়ে আসবেন। শিক্ষার্থী অভিভাবকের সহায়তায় বাড়ির কাজ করে রাখবে। পরের সপ্তাহে গিয়ে তা সংগ্রহের পাশাপাশি নতুন কাজ দিয়ে আসবেন। দ্বিতীয় সপ্তাহে গিয়ে সেটা সংগ্রহ করে আবার তৃতীয় বাড়ির কাজ দিয়ে আসবেন।

বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তনের নীতিমালা

জাতীয় বা জেলা ভিত্তিক গ্রেডেশন লিস্ট হলে প্রাথমিক শিক্ষকদের বঞ্চিত হওয়ার সম্ভাবনা কম

শিক্ষকদের গুগল মিটে নিয়মিত ক্লাস নিয়ে বৃহস্পতিবার তথ্য আপলোড করার নির্দেশ

প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও কলেজের উপবৃত্তির টাকা বাড়ছে : আরো কিছু সুখবর

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, এবার আর এটো পাশের সুযোগ নেই। প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার্থীদের বাড়ির কাজের মাধ্যমে মূল্যায়ন করা হবে। তবে বার্ষিক সিলেবাস সম্পন্ন করানো হবে এবং ভবিষ্যতে সম্ভব হলে বিদ্যালয়ে ক্লাস নেওয়া হবে। তবে শিক্ষা কার্যক্রম নিরবচ্ছিন্ন রাখতে পরবর্তীতে এই প্রক্রিয়ায় তাদেরকে মূল্যায়ন প্রক্রিয়া চালু থাকবে।

এদিকে দেশের বিভিন্ন শিক্ষা বোর্ডে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পূর্বে মাধ্যমিক স্তরের জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার প্রাক প্রস্তুতি মূলক কাজ গুলো এতোদিনে সম্পন্ন করে ফেলা হতো। পরীক্ষা যেহেতু নভেম্বরে নেওয়া হয় তাই এরকম সময় শুরু হয়ে যেত প্রশ্ন তৈরী ও মুদ্রণের কাজের প্রস্তুতি। কিন্তু এ বছর এখনো এ ব্যাপারে মন্ত্রণালয়ের কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য সর্বশেষ মন্ত্রী পরিষদ বিভাগের একটি ঘোষণায় ১ মাস লকডাউন বৃদ্ধি করা হয়। ফলে আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন বৃদ্ধি পায়। তাই সাধারণ ভাবে মনে করা হচ্ছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটিও ১৫ জুন পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে। এবং জুলাইয়ের ২২ তারিখ সম্ভাব্য ইদুল আযহা হবার সম্ভাবনা আছে, তাই তাই জুলাই মাসেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সম্ভাবনা নেই। তাছাড়া করোনার সংক্রমণ ও মৃত্যুহারের ঊর্ধ্বগতির ফলে নিকট ভবিষ্যতে প্রাথমিক-মাধ্যমিকন পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার এবং শ্রেণি পাঠদান শুরু করতে পারার সম্ভাবনা অনেকটা অনিশ্চিত। তাই অটো প্রমোশন এবং শিক্ষার্থীদের মূল্যায়ণ পদ্ধতির চূড়ান্ত ঘোষণা আগামী জুলাই শুরুতেই আসতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে জানা যায়।

-ডি বি এ বি।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন