১লা আগস্ট, ২০২১ ইং, রবিবার, ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

বুস্টার ডোজ নিয়েও করোনায় শিক্ষকের মৃত্যু

মৃত্যু শিক্ষক মো. দবির হোসেন

ডিবি নিজস্ব প্রতিবেদক :: করোনা টিকার দুই ডোজ নেওয়ার পরও ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন মো. দবির হোসেন (৪৫)। ইন্না-লিল্লাহ….। উনি মানিকগঞ্জের এক সরকারি স্কুলের শিক্ষক ছিলেন।

২২ জুন, মঙ্গলবার ভোর ৬টার তিনি মৃত্যু বরণ যান। মানিকগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুল আমিন আকন্দ এ শিক্ষকের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মৃত মো. দবির হোসেনের পিতার নাম বাদশা মিয়া। তিনি মানিকগঞ্জের সদর উপজেলার পুটাইল গ্রামের বাসিন্দা। উক্ত শিক্ষক সদর উপজেলার মধ্য পুটাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

আরও পড়ুন : নগদে যারা উপবৃত্তি বা জামা জুতার টাকা পায়নি : তাদের যা করতে হবে

মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষার্থীরা ৬ মাসের উপবৃত্তির টাকা পাচ্ছে

শিক্ষকদের টাইমস্কেলে হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেলে তাকে সরিয়ে নেওয়া হবে

তার মৃত্যুর বিষয়ে হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার কাজী একেএম রাসেল জানান, শিক্ষক দবির হোসেন ২১ জুন সকাল ৯টায় মানিকগঞ্জ সদরের ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে করোনা ইউনিটের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি হন। এরপর গতকাল ২২ জুন, মঙ্গলবার ভোর ৬টার দিকে মারা যান।

শিক্ষকের ভাই আবির হোসেন জানান, তার ভাইকে শ্বাসকষ্ট নিয়ে তাকে হাসপাতালের করোনা ইউনিটের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয় এবং ওইদিনই করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা নেওয়া হয়। সেই করোনা রিপোর্ট আসার আগেই ২২ জুন সকালে তার ভাইয়ের মৃত্যু হয়। পরবর্তী দেখা যায় শিক্ষক দবির হোসেনর রিপোর্টটি করোনা পজিটিভ।

মৃত্যু শিক্ষক দবির হোসেনের মানিকগঞ্জের জেনারেল হাসপাতাল থেকে গত ১৬ ফেব্রুয়ারি টিকার প্রথম ডোজ নেন এবং এরপর ১৫ এপ্রিল ২০২১ তারিখে দ্বিতীয় ডোজ গ্রহন করেন।

এই করোনার বুস্টার ডোজ বা দ্বিতীয় ডোজ নেওয়ার পরও মৃত্যুর ঘটনা ঘটার বিষয় নিয়ে সিভিল সার্জন ডা. আনোয়ারুল আমিন আকন্দ বলেন, করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পরও করোনায় আক্রান্ত হতে পারে। তবে বুস্টার ডোজ নেওয়ার পর এই ভাইরাসে মৃত্যুর ঝুঁকি কম থাকে।

উল্লেখ্য, শিক্ষক দবির হোসেনের মৃত্যুর মাধ্যমে এই মানিকগঞ্জ জেলায় এই ভাইরাসটিতে এপর্যন্ত ৪৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন