প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে না ২ টি কারণে

নিয়োগ

ডিবি ডেস্ক :: গত বছরের ২৪ নভেম্বর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ আবেদন প্রক্রিয়া শেষে চলতি বছরের জানুয়ারির শেষ বা ফেব্রুয়ারি নাগাদ পরীক্ষা নেয়ার চিন্তা করেছিল প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর।

সেই এক-দুই মাসের মধ্যে নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করার কথা থাকলেও নানা কারণে পরীক্ষার অনুষ্ঠানের বিষয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দেয়। তারপর থেকে এই দীর্ঘ সময় পার হলেও নেওয়া হয়নি নিয়োগ পরীক্ষা।

এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে মূলত দুই ধরনের সংকট বিদ্দমান। তার একটি হল করোনা সংকট ও আরেকটি হল পোষ্য কোটা বাতিলের দাবিতে রিট করাকে অন্যতম কারণ মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এবিষয়ে জানা গেছে, তবে শীতে জানুয়ারি-ফেব্রুয়ারি নাগাদ করোনা পরিস্থিতির প্রকোপ বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে। একই সঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে পোষ্য কোটা ২০ শতাংশ বাতিলের দাবিতে রিট করা হয়েছে। যার ফলে এখনই পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। এ নিয়ে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কোটা নিয়ে রিট নিষ্পত্তি ও করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার আগে এই নিয়োগ পরীক্ষা নেওয়া যাচ্ছে না। এজন্য চলতি অর্থবছরের আগে পরীক্ষা নেয়া সম্ভব কিনা তা নিয়ে সংশয় ও সংকটময় পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

এছাড়া প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মুনসুরুল আলম জানান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান না খুললে এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত করা সম্ভব নয়। সবমিলিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা নিয়ে।

এছাড়া প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, এবারের নিয়োগে প্রায় ১৩ লাখ আবেদন জমা হয়েছে। যারমধ্যে রাজশাহীতে দুই লাখ ১০ হাজার ৪৩০ জন, খুলনায় এক লাখ ৭৮ হাজার ৮০৩ জন, ময়মনসিংহে এক লাখ ১২ হাজার ২৫৫ জন, ঢাকায় দুই লাখ ৪০ হাজার ৬১৯ জন, চট্টগ্রামে এক লাখ ৯৯ হাজার ২৩৬ জন, বরিশালে ১ লাখ ৯ হাজার ৩৪৪ জন, সিলেটে ৬২ হাজার ৯০৭ জন, রংপুরে এক লাখ ৯৬ হাজার ১৬৬জন প্রার্থী আবেদন করেছে।

READ MORE  প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্যানেলে শিক্ষক নিয়োগের দাবিতে অধিদপ্তর ঘেরাও

নিয়োগ পরীক্ষা কিভাবে অনুষ্ঠিত হবে, সেবিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আতিক বিন সাত্তার বলেন, নিয়োগ প্রত্যাশী আবেদনকারীর সংখ্যার ওপর নির্ভর করে কত ধাপে পরীক্ষা নেওয়া হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। তবে মোট শূন্য পদের চেয়ে প্রায় তিনগুন বেশি প্রার্থী লিখিত পরীক্ষার মাধ্যমে নির্বাচন করা হবে।

আরও পড়ুন : স্থগিত থাকা মাদ্রাসার সহকারী গ্রন্থাগারিক ও গ্রন্থাগারিক পদে নিয়োগ সিদ্ধান্ত দ্রুতই

সারাদেশে প্রাথমিক শিক্ষকদের একটি মাত্র সংগঠন রাখতে যে উদ্যোগ নিচ্ছে মন্ত্রণালয়

১ লাখ শিক্ষক-কর্মচারী ৫ হাজার ও আড়াই হাজার টাকা করে পাচ্ছেন

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পূনরায় সভাপতি হতে সংসদ সদস্যদের আপিল

এছাড়া তিনি আরও বলেন, কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা শুরু করতে বিলম্ব হচ্ছে। তবে অধিদপ্তর প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে, করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ডিবি আর আর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *