২৩শে অক্টোবর, ২০২১ ইং, শনিবার, ৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

প্রাথমিকের শিক্ষকদের জন্য নতুন দুঃসংবাদ অপেক্ষমান

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্ক : দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক যারা ‘তদবির’ এর মাধ্যমে বদলি হয়েছেন, তারা পদোন্নতিতে পিছিয়ে পড়বেন। ২০১৯ সালের নতুন নিয়োগ বিধিমালা অনুযায়ী উপজেলা বা থানার মেধাতালিকা অনুসারে জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ করে পদোন্নতি দেওয়া হবে। এছাড়া বদলি হওয়া শিক্ষকদের যোগদানের তারিখ থেকে জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ করা হবে। চাকরি প্রাপ্তির শুরু থেকে নয়।

এই জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা বা থানার শূন্যপদের ২০ শতাংশ বদলির কথা থাকলেও তদবিরের মাধ্যমে নিয়ম না মেনে ইচ্ছামতো বদলি করা হয়েছে শিক্ষকদের। যাদের প্রায় ১০০% বদলি হয়েছেন কোনও না কোনও জেলা সদরে। শুধু তাই নয়, বদলির পর এসকল শিক্ষকদের পদোন্নতিও দেওয়া হয়েছে অনিয়মের মাধ্যমে। যে কারণে স্থানীয় কোটায় নিয়োগ পাওয়া শিক্ষকদের মধ্যে বিরুপ প্রক্রিয়া লক্ষ্য করা গেছে। এছাড়া এসকল শিক্ষকরা তদবির করে জেলা শহরে বদলি হওয়ার কারণে গ্রামে অবস্থিত বিদ্যালয় সমুহে শিক্ষক সংকট চরমে পৌছেছে। এহেন পরিস্থিতি সামাল দিতে পদোন্নতির জন্য এবার ২০১৯ সালের নিয়োগ বিধিমালা অনুযায়ী জ্যেষ্ঠতার তালিকা করা হচ্ছে। যে বিধিমালার ৩ এর (৩) ধারায় বলা হয়েছে, নিয়োগ কার্যক্রম শূন্যপদের ভিত্তিতে উপজেলা বা থানাভিত্তিক হবে। এবং ২০২০ সালের ১৫ নভেম্বর জারি করা আদেশে জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণে বলা হয়েছে, ”২০১৯ সালের নিয়োগ বিধিমালাসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিধিমালা অনুসরণ করতে হবে।”

বিষয়টি নিয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর সূত্রে আরও জানা গেছে, বিভিন্ন সময় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের উপজেলা বা থানার কোটায় মেধাতালিকা অনুযায়ী নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে জাতীয় মেধাতালিকা সংরক্ষিত নেই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের। এর বাইরে নন-ক্যাডার থেকে প্রধান শিক্ষক পদেও নিয়োগ দেওয়া হয়েছে আলাদা মেধাক্রমের ভিত্তিতে। যে কারণে উপজেলা বা থানাভিত্তিক জ্যেষ্ঠতা নির্ধারণ করে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের পদোন্নতি দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যাতে উপজেলার বাইরে বদলি হওয়া শিক্ষকরা মেধাক্রমে পিছিয়ে পড়ছেন। হ্যা, তবে এসকল শিক্ষক যে উপজেলা বা থানার কোটায় নিয়োগ সেই পূর্বের উপজেলায় পূণরায় ফেরত গেলে তারা আর পদোন্নতি বা জ্যেষ্ঠতায় আর পিছিয়ে পড়বেন না।

আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এবিষয়ে বলেন, আমরা নিয়োগবিধি অনুযায়ী পদোন্নতি দিচ্ছি। এক্ষেত্রে বদলি নীতিমালা অনুযায়ী পদোন্নতি দেওয়া হবে না। তিনি আরও বলেন, এতে বদলি হওয়া শিক্ষকরা বঞ্চিত হবেন সত্য, কিন্তু বদলির কারণে উপজেলা/থানা কোটায় নিয়োগ পাওয়া রাজধানী ও জেলা সদরের শিক্ষকরাও বঞ্চিত হবেন। এই জটিলতা কাটাতে ইতিমধ্যে আমরা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের মতামত চেয়েছি। এনিয়ে মন্ত্রণালয় একটি বৈঠকও করেছে। তাদের মতামত পাওয়া গেলে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

অধিদপ্তর মহাপরিচালক আরও বলেন, ‘প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে তদবির করে বদলি হয়ে জেলা শহরে এসেছেন অনেক শিক্ষক। যে কারণে প্রতিবারই ওই সব এলাকায় বেশি শিক্ষক নিয়োগ দিতে হচ্ছে। যার কারণে কম যোগ্য শিক্ষকও নিতে হচ্ছে আমাদের। অথচ জেলা শহরে যোগ্য প্রার্থী থাকা সত্যেও তাদের নেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

আরও পড়ুনঃ

সহকারী ও প্রধান শিক্ষকদের দ্রুত উচ্চতর গ্রেড/টাইমস্কেল প্রদানের নির্দেশ

সহকারী ও প্রধান শিক্ষকদের দ্রুত উচ্চতর গ্রেড/টাইমস্কেল প্রদানের নির্দেশ

২০২১ সালের এসএসসি এইচএসসি পরীক্ষা সম্পর্কে সিদ্ধান্ত জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষার্থীদের ল্যাপটপ, মোবাইল, কম্পিউটার, ট্যাব কেনার জন্য টাকা বাড়িয়েছে সরকার

সমন্বিত নিয়োগ বিধিতে যে সকল শিক্ষকদের পদোন্নতির বিধান নেই

সকল সরকারি কর্মচারীদের আইবাস++ এ জিপিএফ সম্পর্কিত তথ্য আপলোড করার নির্দেশ

ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন