২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং, মঙ্গলবার, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার তারিখ, নম্বর, উপজেলা, কোটা, কতজনকে টিকানো হবে?

প্রাইমারি শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা-২০২১

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্ক :: দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা নিয়ে কিছু প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন আতিক এস বি সাত্তার, যিনি সহকারী পরিচালক প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নিয়োগ শাখার। তার কাছ থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক পদে নিয়োগ প্রক্রিয়াধীন পরীক্ষা ও নিয়োগ সম্পর্কিত কয়েকটি অতিব গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর পাওয়া গেছে। দৈনিক সমকাল সূত্রে পাওয়া সেই তথ্যগুলো পাঠক ও নিয়োগ পরীক্ষার্থীদের তুলে ধরা হল।

প্রশ্নঃ এবারের প্রাথমিক শিক্ষক পরীক্ষা কোন পদ্ধতিতে অনুষ্ঠিত হবে? কোন কোন অংশে কত নম্বর থাকবে?

উত্তরঃ এবারেও লক্ষ পরীক্ষার্থী এই নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেবেন। যেকারণে বেশিসংখ্যক পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা লিখিত আকারে নেওয়াটা বেশ জটিল। সেজন্য এবারের পরীক্ষা ও এমসিকিউ পদ্ধতিতেই নেওয়া হবে। এমসিকিউতে নম্বর থাকবে ৮০। শুধুমাত্র এমসিকিউতে যাঁরা পাস করবেন, তাঁদের ২০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে।

প্রশ্নঃ প্রাথমিকের নিয়োগপরীক্ষা কয় মাস পর হওয়ার সম্ভাবনা, নিয়োগ হতে কেমন সময় লাগতে পারে?

উত্তরঃ আতিক বলেন, আমাদের প্রস্তুতি হচ্ছে মাস তিনেকের মধ্যেই পরীক্ষা নেওয়ার। এছাড়া পুরো প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যে শেষ করাই আমাদের লক্ষ্য। তবে পরবর্তী প্রেক্ষাপট বা পরিস্থিতির কারণে এই প্রক্রিয়ার হেরফের হতে পারে।

প্রশ্নঃ পরীক্ষা কী উপজেলাভিত্তিক হবে, একেক উপজেলায় একেক সময় পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে?

উত্তরঃ এবারের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অবশ্যই উপজেলাভিত্তিক হবে। তিনি বলেন, পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে নিতে গেলে এটাই সবচেয়ে ভালো উপায়।

প্রশ্নঃ এবারের নিয়োগের কোটা পদ্ধতি কেমন হবে?

উত্তরঃ এবারের নিয়োগে ৬০% নারী কোটা, ২০% পুরুষ কোটা এবং ২০% পোষ্য কোটার জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে। আতিক এস বি সাত্তার বলেন, এর মধ্যে বিজ্ঞান বিষয়ে ডিগ্রিধারীদের জন্য ২০% কোটা অন্তর্ভুক্ত রাখা হয়েছে। তথা, বিজ্ঞান বিষয়ে ডিগ্রিধারীদের জন্য ২০% কোটার ১২ শতাংশ নারী কোটায় (৬০ শতাংশ নারী কোটার মধ্যে এই ১২ শতাংশ বিজ্ঞান কোটাও অন্তর্ভুক্ত আছে) এবং ৪% পুরুষ কোটায় এবং ৪% পোষ্য কোটায় অন্তর্ভুক্ত হবে।

প্রশ্নঃ প্রত্যেক উপজেলায় যে পরিমাণ পদ খালি আছে, তার কত গুণ বেশি প্রার্থীকে এমসিকিউ পরীক্ষায় টেকানো হবে?

উত্তরঃ এই প্রশ্নের উত্তরে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের নিয়োগ শাখার সহকারী পরিচালক বলেন, কতগুন বেশি টিকানো হবে এটা মূলত পরীক্ষা কমিটি নির্ধারণ করে। এর সঙ্গে নিয়োগ প্রার্থীর সংখ্যা, শূন্য পদের সংখ্যাসহ কয়েকটি বিষয় সম্পর্কযুক্ত। তবে এর আগের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষাগুলোতে লিখিত পরীক্ষা থেকে শূন্য পদের চেয়ে ২.৫ থেকে ৩ গুণ বেশি প্রার্থীকে টিকানো হয়েছিল।

দৈনিক বিদ্যালয় : শিক্ষা ও চাকুরী বিষয়ক সকল আপডেট পেতে নিয়োমিত পড়ুন আপনার মোবাইল, ল্যাপটপ ও ডেস্কটপে শুধুমাত্র ‘দৈনিক বিদ্যালয়’ লিখে সার্চ দিয়ে। -ডিবি আর আর।

আরও পড়ুন

প্রাথমিকের শিক্ষকদের জন্য নতুন দুঃসংবাদ অপেক্ষমান

প্রাথমিকের নিয়োগ বিধিমালায় শিক্ষকদের পদোন্নতির নামে শুভঙ্করের ফাঁকি

প্রাথমিক শিক্ষকদের ১৩তম গ্রেডে বেতন ফিক্সেশন সহজ করতে উদ্যোগ গ্রহন

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন