২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং, মঙ্গলবার, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

করোনায় মৃত্যু স্ত্রীকে এম্বুল্যান্সে বসে দেখলেন স্বামী : হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা

করোনায় আক্রান্ত স্ত্রীকে দূর থেকে শেষ বারের মত দেখছেন স্বামী

ডিবি ডেস্ক :: কুমিল্লা সদর উপজেলার রসুলপুর নিজ এলাকার কথিত প্রভাবশালীদের নিষেধাজ্ঞার কারণে করোনা আক্রান্ত স্বামী বাড়িতে যেতে নিষেধ করায় ভিন্নভাবে দেখতে হল শেষ বারের মত প্রিয়তমার মুখ!

কুমিল্লা নগরীর নবাববাড়ি এলাকায় এমন হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। দুজনঅই করোনায় আক্রান্ত স্বামী-স্ত্রী। একজন রাজধানী ঢাকায় ও অন্যজন কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

আরও পড়ুন : এবার টিকা নেওয়া ছাড়া বাইরে বের হওয়া যাবে না : লকডাউন উঠে যাচ্ছে

সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রতি একটি বিশেষ অনুরোধ

ইন্টারনেট অফারে ডাটা ফেরত দেওয়ার নির্দেশ : টেলিকম মনিটরিং সিস্টেম আসছে

ঘটনাটি ৩১ জুলাই শনিবারের। সেদিন ভোর বেলাতেই রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান করোনা আক্রান্ত স্বামীর প্রিয়তমা স্ত্রী। নাম ফিরোজা বেগম। নিজ স্ত্রীকে শেষবারের মতো দেখতে বিকেলে অ্যাম্বুলেন্সে ছুটে আসেন আবদুর রশিদ। স্বামী ও কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে করোনা চিকিৎসা নিচ্ছিলেন।

আক্রান্তদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, করোনা আক্রান্ত স্বামীর হাসপাতাল থেকে স্ত্রীর মরদেহ দেখার অনুমতি মিললেও কুমিল্লা সদর উপজেলার রসুলপুর নিজ এলাকার কথিত জনৈক প্রভাবশালীদের নিষেধাজ্ঞার কারণে করোনা আক্রান্ত স্বামী বাড়িতে যেতে নিষেধ করা হয়। পরে স্বামী নিজ বাড়িতে যেতে না পেরে কুমিল্লার নবাববাড়ি; যেখানে মৃত্যু দেহ গোসল করানো হয়েছিল, সেখানে প্রিয়তমা স্ত্রীকে শেষ বারের মতো দেখতে আসেন স্বামী। শেষ বারের মত দূর থেকে কাফনে মোড়ানো স্ত্রীকে দেখে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন স্বামী। সে সময় সন্তান ও আত্মীয়স্বজনদের কান্নায় আশপাশের আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে উঠে।

ঘটনার বিবরণে আরও জানা যায়, করোনায় মৃতদের দাফনের কাজে নিয়োজিত সংগঠন ‘বিবেক’ এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ইউসুফ মোল্লা টিপু জানান, নবাব বাড়িতে যখন উনার স্ত্রীর মরদেহ গোসল সম্পন্ন করি। তখন জানতে পারি ফিরোজা বেগমের স্বামী আবদুর রশিদ বাড়িতে গিয়ে তাঁর স্ত্রীর মরদেহ শেষবারের মত দেখতে চান। আমরা তখনি তার স্বজনদের ফোন মারফত জানতে পারলাম, করোনা আক্রান্ত কাউকে গ্রামে যেতে নিষেধ করছে কে বা কারা। যে কারণে মৃত্যু স্ত্রীর স্বামী আবদুর রশিদ কুমিল্লা হাসপাতাল থেকে অ্যাম্বুলেন্সে নিয়ে ছুটে আসেন। সেখানেই এক হৃদয়বিদারক পরিবেশ সৃষ্টি হয়।

বিবেক প্রতিষ্ঠাতা আরও জানান, করোনার কারণে মানুষ মানুষকে কিভাবে এড়িয়ে যায় সেটি আজ দেখলাম। দেখলাম স্ত্রীর জন্য স্বামীর ভালোবাসা। তিনি বলেন, এই দুঃসময়ে আমাদের একজন আরেকজনের পাশে থাকাটা খুব দরকার।

ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন