যে কারণে ক্লাসে যেতে পারলো না সিলেটের ৩৪ স্কুলের শিক্ষার্থীরা

প্রাথমিক

ডিবি রিপোর্ট :: করোনার কারণে দেড় বছরেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর ১২ সেপ্টেম্বর খুলল দেশের সব স্কুল-কলেজ। পাঠদান শুরু হওয়ায় শিক্ষার্থীদের পদচারণায় প্রাণচাঞ্চল্য ফিরেছে বিদ্যালয়গুলোতে। দীর্ঘদিন পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আসতে পেরে উচ্ছ্বসিত শিক্ষার্থীরা। তবে আর্থিক অনাটনে কিছু স্কুল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় শ্রেণিকক্ষে যেতে পারেনি সেই স্কুলের খুদে শিক্ষার্থীরা।

জানাগেছে, কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে আর্থিক অনাটনে সিলেটে স্থায়ীভাবে বন্ধ হয়ে গেছে ৩৪টি কিন্ডারগার্টেন স্কুল। যারফলে শিখন-শেখান কার্যক্রম বন্ধ আছে সে সব বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। এর ফলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললেও স্কুলে যেতে পারিনি প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ ভাগ শিক্ষার্থী।

এবিষয়ে বাংলাদেশ কিন্ডারগার্টেন সিলেট জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মওদুদ আহমদ বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে দীর্ঘদিন এসব প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় ভবনের ভাড়া বহন করতে না পেরে স্কুলগুলো বন্ধ করে দিতে বাদ্ধ হয়েছে তারা। সিলেটের অন্য স্কুলগুলো খুললেও শিক্ষার্থীদের একটা বড় অংশ বিদ্যালয়ে আসেনি। তিনি বলেন, তবে যারা স্কুলে এসেছে তাদের চোখেমুখে আমরা আনন্দ দেখেছি।

সিলেটের সরকারি অগ্রগামী বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী জানায়, করোনায় তার স্কুল বন্ধ থাকায় অনলাইনে ক্লাস করেছে। কিন্তু সেই পাঠদান তার কাছে অতটা প্রাণবন্ত ছিল না। সে বিদ্যালয়ে সশরীরে এসে প্রিয় শিক্ষক ও সহপাঠীদের সঙ্গে ক্লাস করতে পেরে যেন দেড় বছর আগের সেই স্বাদ ফিরে পেয়েছে। তার স্কুলে আসতে পেরে ভালো লাগছে। এমনটা অনুভূতি ছিল সিলেটের অন্যান্য স্কুল ফেরা শিক্ষার্থীদের।

এবিষয়ে বিশেষজ্ঞ শিক্ষকদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, এদের দ্রুত মূলধারার সরকারি প্রাথমিকে ফিরিয়ে আনার প্রয়োজন। -ডিবি আর আর।

আরও খবরঃ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আবর্জনা : ইনস্ট্যান্ট ব্যবস্থা নেওয়া হবে

দীর্ঘদিন অনুপস্থিতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর

স্কুল ড্রেস নিয়ে শিক্ষার্থীদের চাপ না দিতে নির্দেশ মন্ত্রীর

READ MORE  প্রাথমিক সহকারী শিক্ষকদের ১০ম গ্রেড দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *