২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং, মঙ্গলবার, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও মাদ্রাসার নতুন কারিকুলামে যত পরিবর্তন

প্রাথমিক ও শিক্ষা অধিদপ্তর ও মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড

দৈনিক বিদ্যালয় রিপোর্ট :: পরিমার্জিত কারিকুলামের প্রস্তাবিত খসড়া প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিয়েছেন। সেই কারিকুলামে আনন্দময় শিক্ষা ও শ্রেণিকক্ষেই শিখন-শেখানো কার্যক্রমের সব কিছু সম্পন্ন করার ব্যবস্থা রেখে কারিকুলাম বা শিক্ষাক্রমকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে।

আরও খবরঃ ৫ম শ্রেণির সমাপনী ও ৮ম শ্রেণির জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষা হবে নিজ নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে

সব ছাত্র-ছাত্রীদের ফুলহাতা জামা পরে ক্লাসে আসতে নির্দেশ জারি

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ম্যানেজিং কমিটি গঠনে নিষেধাজ্ঞা আর নেই

শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছেন, ২০২২ সালে কারিকুল পাইলটিংয়ের পর ২০২৩ সাল থেকে শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন শুরু করা হবে। এরপর পর্যায়ক্রমে ২০২৫ সালের মধ্যে মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন সম্পন্ন হবে। এরপর উচ্চ মাধ্যমিকের শিক্ষাক্রম বাস্তবায়ন হবে ২০২৬ ও ২৭ সালে।

প্রধানমন্ত্রী খসড়ার অনুমোদন দেওয়ার পরে ১৩ সেপ্টেম্বর দুপুরে শিক্ষামন্ত্রী সচিবালয়ের সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে জানান, পরিমার্জিত নতুন কারিকুলামে পরীক্ষা পদ্ধতির চেয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীর শিখনকালীন মূল্যায়ন বা ধারাবাহিক মূল্যায়নর উপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষা রাখা হয়নি। তিনি বলেন, শুধু তৃতীয় শ্রেণি পর্যন্তই নয়, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক স্তরে সামষ্টিক মূল্যায়ন বা পরীক্ষার পাশাপাশি ধারাবাহিক মূল্যায়ন রাখা হয়েছে বড় অংশে।

আবশ্যিক বিষয় ছাড়া অন্য বিষয়গুলোতে পরীক্ষা হবে না। 

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানান, কেন্দ্রীয়ভাবে প্রাথমিকের পিইসি, মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের জেএসসি ও মাদ্রাসার ৮ম শ্রেণির জেডিসি পরীক্ষা পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না। এছাড়া নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানে এসকল পরীক্ষা নেওয়া হবে। এরসাথে সনদপত্র ও দেওয়া হবে। নতুন কারিকুলামে নবম ও দশম শ্রেণির বই আলাদা করা হয়েছে। নবম ও দশম শ্রেণির বই একসাথে নয়, শুধুমাত্র দশম শ্রেণির পাঠ্যবই পড়িয়েই এসএসসি ও সমমানের পাবলিক পরীক্ষা নেওয়া হবে। তথা এরপর থেকে এসএসসি বা দাখিল ও সমমান পরীক্ষার আগে আর কোনও পাবলিক পরীক্ষা থাকছে না।

এছাড়া উচ্চ মাধ্যমিকের একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণির বই আলাদা করা হয়েছে, পরীক্ষাও অনুষ্ঠিত হবে আলাদাভাবে। যা এখন ২ শ্রেণিকে একই ধরা হয়। দুই পরীক্ষা ও মূল্যায়ন সমন্বয় করে ফলাফল দেওয়া হবে বলে জানান মন্ত্রী।

নতুন পরিমার্জিত কারিকুলাম সম্পর্কে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এই কারিকুলামে দক্ষতা অর্জনের বিভিন্ন কৌশল সম্পর্কে বলা আছে। এছাড়া শিখন সময় প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কত সময়, মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের কত হবে তা উল্লেখ করা আছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষাক্রম২০১২ এবং জাতীয় শিক্ষাক্রম রূপরেখা ২০২০ সম্পর্কেও এই কারিকুলামে উল্লেখ আছে। -ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন