প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কী এবছরেই?

চাকুরী

দৈনিক বিদ্যালয় রিপোর্ট :: দেশে করোনা সংক্রমণের হার নিয়ন্ত্রণে থাকলে এবছর ২০২১ সালেই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত করতে চায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। সংশ্লিষ্টদের মাধ্যমে জানাগেছে, তারা জাতীয় পরামর্শক কমিটির মতামত নিয়ে ধাপে ধাপে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করবে।

আরও খবরঃ বিষয় : প্রাথমিক শিক্ষকদের স্কুল ত্যাগের সময় নির্ধারণ

প্রাথমিকে সব ক্লাস একসাথে চলবে কবে থেকে : প্রাগশি প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য

প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও মাদ্রাসার নতুন কারিকুলামে যত পরিবর্তন

অধিদপ্তর সূত্র বলছে, গত বছরের মার্চ থেকে দীর্ঘ ১৭ মাস পর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। সূত্রটি আরও জানিয়েছে, শিক্ষক নিয়োগের আবেদন কার্যক্রম শেষে তা যাচাই-বাছাইয়ের কাজ ও শেষ হয়েছে। এখন প্রশ্নপত্র তৈরি, ওএমআরসীট বা নৈমিত্তিক উত্তরপত্র তৈরির কাজ চলমান রয়েছে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর বলছে, অন্যান্য সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোর বড়-বড় নিয়োগ পরীক্ষা শুরু হলে আমরাও শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করব।

এবিষয়ে জানতে চাইলে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুর আলম বলেন, চলতি করোনা পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা। নিয়োগে আমরা ১৩ লাখের বেশি প্রার্থীর আবেদন পেয়েছি। এছাড়া পরীক্ষা অনুষ্ঠানের জন্য আমরা প্রস্তুত আছি,সংক্রমণ আর বৃদ্ধি না পেলে আমরা পরীক্ষা অনুষ্ঠিত করতে চাই।

ডিপিই ডিজি আরও বলেন, পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি, বাংলাদেশ সার্ভিস কমিশনের নিয়োগ পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হলে আমরাও নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করতে চাই। এ বছরই নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত করা করা হবে। এখন ওএমআর সিট প্রস্তুতের কাজ চলছে। আমরা জাতীয় পরামর্শক কমিটির মতামত নিয়ে ধাপে ধাপে নিয়োগ পরীক্ষা শুরু করা যায় কি-না সেটি পর্যালোচনা করছি।

কিছুদিন আগে ঠিক এমনটাই জানিয়েছিলেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। তিনি বলেছিলেন, ”করোনা পরিস্থিতির কারণে পরীক্ষা আয়োজনের সব প্রস্তুতি শেষ করেও লিখিত পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব হয়নি। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললেই আমরা এ নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা আয়োজন করতে চাই।”

READ MORE  ভারতের রাজ পরিবারের একটি অসাধারণ গল্প

এছাড়া অধিদপ্তর এর আগে জানিয়েছিল, শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত টেকনিক্যাল কাজ এগিয়ে রাখা হয়েছে এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সঙ্গে চুক্তিও সম্পন্ন হয়েছে।

উল্লেখ্য, এবারের নিয়োগে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩২ হাজারের বেশি সহকারী শিক্ষক নিয়োগ প্রাপ্ত হবে। প্রাক-প্রাথমিক শ্রেণির জন্য ২৫ হাজার ৬৩০ জন ও বাকি পদে নিয়োগ প্রাপ্ত হবে তারা। -ডিবি আর আর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *