দুবাইয়ে বিনিয়োগে শীর্ষে ভারতীয়রা

২০২৩ সালের প্রথম ছয় মাসে দুবাইয়ে সর্বোচ্চ বিনিয়োগকারী দেশগুলোর তালিকায় নাম রয়েছে ভারতের। এ সময়ে অঞ্চলটিতে ৩৩ কোটি ৫০ লাখ ডলার বিনিয়োগ করেছে দেশটি। ভেস্তিয়ান নামের একটি পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের সাম্প্রতিক ডাটা বিশ্লেষণ করে উঠে এসেছে এমন চিত্র।

সংস্থাটি জানায়, সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইয়ে ভারতীয়দের বিনিয়োগ উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। ২০২০-২৩ সালের প্রথম ছয় মাসে এর পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৬০ কোটি ডলার। করবান্ধব নীতিসহ দুবাইয়ের কৌশলগত অবস্থান নতুন বাজারে ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের এবং ব্যবসার মালিকদের জন্য মূল প্রণোদনা হিসেবে কাজ করছে।

ভেস্তিয়ান মূলত বাণিজ্যিক, আবাসিক, শিল্প, খুচরা ও আতিথেয়তা খাতের বিশেষজ্ঞ প্রতিষ্ঠান। ভারত, চীন, যুক্তরাজ্য, শ্রীলংকা ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে তাদের অফিস রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির সদর দপ্তর যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোয়।

ভেস্তিয়ান জানায়, ২০২০-২২ সাল পর্যন্ত দুবাইয়ে ভারতীয় বিনিয়োগ প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। ২০২২ সালে এর পরিমাণ ছিল ৫৪ কোটি ১০ লাখ ডলার। ২০২৩ সালে প্রথম ছয় মাসেই বিনিয়োগ হয়েছে আগের বছরের মোট বিনিয়োগের ৬২ শতাংশ। গত বছর দুবাইয়ের আবাসিক বাজারে ভারতীয় বিনিয়োগকারীদের মোট ক্রয়ের পরিমাণ ছিল ৪০০ কোটি ডলার।

কোভিডকালীন শেষ হওয়ার পর ভারতীয় বিনিয়োগকারীরা ক্রমাগতভাবে দুবাইয়ে তাদের বিনিয়োগ বাড়িয়েছে। ২০২০ সাল থেকে তা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। বিনিয়োগের পরিমাণ ২০২০-২২ পর্যন্ত প্রায় দ্বিগুণ হয়েছে। এ ধরনের লেনদেন অব্যাহত থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে এবং তা ডি৩৩-এ (দুবাই ইকোনমিক এজেন্ডা) বর্ণিত দুবাইয়ের অর্থনৈতিক লক্ষ্যের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ বলে আশা করা হচ্ছে।

অঞ্চলটিতে মোট ১২৩টি প্রকল্পে ভারতীয় বিনিয়োগ রয়েছে। এক্ষেত্রে দেশটি কানাডা ও লাটভিয়ার মতো দেশগুলোকেও ছাড়িয়ে গেছে।

ভেস্তিয়ানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা শ্রীনিবাস রাও বলেন, ‘সংযুক্ত আরব আমিরাতের লক্ষ্য ২০২৩ সালের মধ্যে দুবাইয়ের জিডিপি দ্বিগুণ করা এবং বৈশ্বিক অর্থনৈতিক হাব হিসেবে নিজের অবস্থান তৈরি করা। ভারতীয় বিনিয়োগকারীরা দেশটির গতিশীল রিয়েল এস্টেট বাজার এবং বিনিয়োগবান্ধব নীতিকে কাজে লাগাচ্ছে। চলমান ইতিবাচক ধারা দুই দেশের মধ্যকার সুসম্পর্কের নিদর্শন। ২০২২ সালে সেপা ব্যাপক অর্থনৈতিক অংশীদারি চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে এটি আরো দৃঢ় হয়েছে। সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকারের উচ্চাভিলাষী অর্থনৈতিক প্রকল্পগুলোয় অবদান রাখছেন ভারতীয় বিনিয়োগকারীরা।’

READ MORE  Everyone At PragerU Awkwardly Trying To Avoid Shaking Dennis's Hand

দুবাই এফডিআই মনিটরের তথ্যানুযায়ী, ভারত থেকে উল্লেখযোগ্য বিনিয়োগ এসেছে আইটি ও ব্যবসায়িক পরিষেবা খাতে। ২০২৩ সালের দ্বিতীয় প্রান্তিকের শেষে ভারতীয় বিনিয়োগকারীরা ১ কেটি ৪০ লাখ ডলার বিনিয়োগ করেছে। এর বেশির ভাগই ছিল গ্রিনফিল্ড প্রকল্পগুলোয়।

শ্রীনিবাস রাওয়ের মতে, ব্যবসায়িক বিনিয়োগে ভারতীয়দের কাছে একটি শীর্ষ গন্তব্য হিসেবে আবির্ভূত হয়েছে দুবাই। জি-২০ সম্মেলনের সময় ভারত-মধ্যপ্রাচ্য-ইউরোপ করিডোরের সঙ্গে সংযোগ স্থাপনকারী একটি আন্তর্জাতিক রেল এবং শিপিং রুটের ঘোষণা এসেছে। এটি বাস্তবায়ন হলে দুই দেশের মধ্যকার যোগাযোগ ব্যবস্থার আরো উৎকর্ষ ঘটবে।