৩০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং, শুক্রবার, ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আবার ছুটি বাড়ল ৩১ আগস্ট পর্যন্ত

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্কঃ
চলমান কোভিড ১৯ মহামারির কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি আরো ২৫ দিন বাড়িয়েছে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার এর শিক্ষা মন্ত্রণালয় সমুহ। বিগত ১৭ই মার্চ থেকে বৈশ্বিক করোনা পরিস্থিতির কারণে এই ছুটি শুরু হয়েছিল বাংলাদেশে। চলমান এই ছুটি আগামী ৬ আগস্ট শেষ হওয়ার কথা ছিল। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ৩১ আগস্ট ২০২০ তারিখ পর্যন্ত প্রাথমিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত বাংলাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

গতকাল বুধবার ২৯ জুলাই ২০২০ ইংরেজি তারিখে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ বিষয়ক কর্মকর্তা মো. আবুল খায়ের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানা গেছে। উক্ত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আগামী ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সব ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় ও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় পারস্পরিক আলোচনার মাধ্যমে নতুন ছুটির এই তারিখ নির্ধারিত হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী ডাক্তার দীপু মনি এমপি এক অনলাইন বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেন।

এ পর্যন্ত কয়েকবার ছুটি বাড়ানো হচ্ছে। এবার আরেক দফায় ছুটি বাড়িয়ে আগস্ট মাসের শেষ তারিখ তথা ৩১ আগষ্ট পর্যন্ত ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এবং চলতি মহামারির কারণে গত পহেলা এপ্রিল ২০২০ তারিখ থেকে এইচ. এস. সি. ও সমমানের যে সকল পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল, সেগুলো ও স্থগিত করা হয়েছে।

জানা গেছে, করোনা কালীন সময়ে শিক্ষা ক্ষেত্রে ক্ষতি পোষাতে বেশ কিছু পরিকল্পনা রয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের। বিগত ছুটি সমুহ ছোট ছোট আকারে হলেও সর্বশেষ ছুটির সময় কাল টি দীর্ঘ ছিল। এ ক্ষেত্রে করোনা পরিস্থিতির স্বাভাবিক হলে আগামী সেপ্টেম্বর মাসের প্রথমে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সমুহ সম্ভাবনা রয়েছে। আর যদি সেপ্টেম্বর মাসের প্রথমেই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ খোলা সম্ভব হয়, সে ক্ষেত্রে ডিসেম্বর মাসের মধ্যে সব পরীক্ষা শেষ করতে চায় শিক্ষা মন্ত্রণালয় সমুহ। আগামী নভেম্বরের মাসে প্রাথমিক সমাপনী / ইবতেদায়ি ও জে.এস.সি / জেডিসি পরীক্ষা আয়োজনের কথা থাকলেও এসকল পরীক্ষা পিছিয়ে নিয়ে ডিসেম্বরে আয়োজন করা হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এক্ষেত্রে আগামী সেপ্টেম্বরে বিদ্যালয় সমুহ খুলতে না পারলে শিক্ষাবর্ষ আরও দুই মাস অর্থাৎ আগামী ২০২১ সনের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বাড়ানোর বিকল্প চিন্তাও আছে বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে সকল ধরনের পরিকল্পনার জন্য সিলেবাস সংক্ষিপ্ত করণের কাজ চলছে বলে জানা গেছে মন্ত্রণালয় থেকে।

(আর. আর. ডি. বি)

ফেসবুকে লাইক দিন