২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং, মঙ্গলবার, ১০ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এসাইনমেন্ট লেখার নিয়ম-কানুন

দৈনিক বিদ্যালয় বিশেষ : গত ১৭ই মার্চ তারিখ থেকে করোনার প্রাদুর্ভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে প্রায় আট মাস। এ বছর মাধ্যমিক সহ প্রায় সকল স্তরে বার্ষিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে না। তবে শিখনফল অর্জনে শিক্ষাবর্ষের শেষ সময়ে সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের ওপর ভিত্তি করে এসাইনমেন্ট লেখার উপর জোর গুরুত্ব দিয়েছে অধিদপ্তর। যা মূল্যায়নের বিকল্প হিসাবে কাজ করবে। গতকাল রোববার থেকে অ্যাসাইনমেন্ট প্রকাশ করছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর। যা চলবে আগামী ছয় সপ্তাহ পর্যন্ত। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক এসা লেখার নিয়ম-কানুন বা বিস্তারিত।

অ্যাসাইনমেন্ট লেখার নিয়ম-কানুন:

শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের জন্য বর্তমানে পরীক্ষার সাথে সাথে অ্যাসাইনমেন্টের গুরুত্ব বাড়ছে। মাধ্যমিক লেভেলে ইতিমধ্যে মাউশি থেকে এসাইনমেন্ট লেখার উপর জোর তাগিদ দেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে ভাল নম্বর পেতে হলে অ্যাসাইনমেন্ট সুন্দর হওয়া বাঞ্ছনীয় কিন্তু অ্যাসাইনমেন্ট সম্পর্কে অনেক শিক্ষার্থী যথাযথ অবগত নয়। এজন্য রয়েছে নির্দিষ্ট পদ্ধতি, কাঠামো এবং কিছু গুরুত্বপূর্ণ কৌশল। সেগুলো নিয়ে আজ আলোচনা করা হবে।

অ্যাসাইনমেন্ট এর গুরুত্ব:

# অ্যাসাইনমেন্ট পাঠ্য বিষয়ের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়সমুহ সম্পর্কে নির্দেশনা প্রদান করতে পারে।

# কোন বিশেষ পাঠ্য বিষয়কে সমালোচকের দৃষ্টি নিয়ে পুরোপুরি পড়তে উৎসাহিত করে।

# যে সব পাঠ্য বই, পত্র-পত্রিকা, সাময়িকী, গবেষণা প্রবন্ধ পাওয়া যায় সেগুলো বিস্তারিতভাবে পড়ে শিক্ষার্থীরা প্রয়োজনীয় বিষয়গুলো নির্বাচন করতে পারেন।

# কোনো বিষয় সম্পর্কে তার নিজস্ব চিন্তাধারা প্রয়োগ করে চিন্তার স্বপক্ষে সাক্ষ্য ও যুক্তি প্রদান এবং বিভিন্ন মতামত মূল্যায়ন করে নির্দিষ্ট সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারে।

# শিক্ষার্থী সকল স্বাধীনভাবে অনুপ্রাণিত হন এবং আত্মবিশ্বাস অর্জন করে।

যেভাবে শুরু করবেনঃ

অ্যাসাইনমেন্ট সাধারণত সংশ্লিষ্ট কোর্স পরিচালনাকারী শিক্ষক নির্ধারণ করে দেন। অনেক অনেক সময় নিজেও বাছাই করে নেয়ার সুযোগ থাকে। অ্যাসাইনমেন্ট বাছাই করেই নিজেকে লেখার কাজে হাত দিতে হবে। এর আগে আপনাকে সকল তথ্য সংগ্রহ করতে হবে।

তথ্যের উৎসঃ আপনার তথ্যের উৎস হবে-

# শিক্ষক কর্তৃক মনোনীত বই। # সংশ্লিষ্ট বিষয়ের সহায়ক বই। # পত্র-পত্রিকা, সাময়িকী, জার্নাল। # ইন্টারনেটে পাওয়া অভিজ্ঞজনের মতামত।

লেখা শুরুর আগে যা করবেনঃ

অ্যাসাইনমেন্ট অনেকটা গবেষণাপত্রের মত। নিজ সংগৃহীত তথ্য এবং বাস্তবতা মিলিয়ে অ্যাসাইনমেন্ট লিখতে হয়। যেমন ধরুন, আপনার অ্যাসাইনমেন্ট-এর বিষয় হলো ‘বাংলাদেশে যৌতুকের অভিষাপের বলি।’ অত্র বিষয়ে আপনি যতটা না সাহায্য পাবেন আপনার সংগৃহীত তথ্য হতে তার চেয়ে বেশি পাবেন বাস্তবতা থেকে। এ ক্ষেত্রে স্কুলগুলোর প্রশাসন ও সরকারের শিক্ষাসংক্রান্ত নির্দেশনা হবে আপনার উৎস। আপনার লেখার ধরণ হবে অন্যরকম। এখানে উপরে আসবেঃ বর্ণনা, সচিত্র ব্যাখ্যা, বিশ্লেষণ, সমস্যা, সমাধান, উন্নতবিশ্বের উদাহরণ, সমাজের ভূমিকা, শিক্ষকদের ভূমিকা, শিক্ষার্থীর ভূমিকা ও সুপারিশ।

অ্যাসাইনমেন্ট-এর রূপরেখাঃ

অ্যাসাইনমেন্টের রূপরেখার সর্বজন স্বীকৃত কোনো
অবকাঠামো নেই। প্রত্যেক এসাইনমেন্টে প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানেরই তাদের আলাদা রূপরেখা বা কাঠামো থাকতে পারে। আলাদা প্রতিষ্ঠানে অ্যাসাইনমেন্টের জন্য যদি আলাদা কোনো রূপরেখা থাকে তা অবশ্যই মেনে চলতে হবে। তবে এক্ষেত্রে সাধারণত যে বিষয়গুলো লিখতে হবে তা হলো

ভূমিকা : এখানে সমস্যার একটি স্পষ্ট বর্ণনা লিখতে হবে। অ্যাসাইনমেন্টে ব্যবহৃত শব্দ ও পদসমুহের সংজ্ঞা থাকবে এবং সমস্যা বা অ্যাসাইনমেন্টের সীমাবদ্ধতা এখানে লিখতে হবে। এর মধ্যে তাৎপর্য ও পটভূমি লিখতে হবে। আনুষঙ্গিক বই পত্রের পর্যালোচনা থাকতে পারে, সমস্যা বা বিষয়টির পরিধি বর্ণিত ও হতে পারে। মোটকথা ভূমিকায় পুরো অ্যাসাইনমেন্ট সম্পর্কিত মোটামুটি একটি ধারনা তুলে ধরতে হবে।

মূল অংশ : এই অংশে যুক্তি-তর্কের মাধ্যমে বিষয়টির উত্তরণ ঘটবে। পুরো অ্যাসাইনমেন্টের মূল অংশ এখানে উপস্থাপন করতে হবে। এই অংশটিতে অপ্রাসঙ্গিক বিষয় অবতারণা করলে চলবে না।

উপসংহার : এখানে পর্যবেক্ষণ, গবেষণা নির্বাচিত বিষয়টির ফলাফল উপস্থাপন করতে হবে। এতে উপরোল্লিখিত সমস্যার সমাধান ও সমস্যার সমাধানের পথনির্দেশ থাকবে। সমস্যা থেকে পরিত্রাণের সুপারিশও থাকতে পারে।

অ্যাসাইনমেন্ট শিরোনামে যা থাকবে :

অ্যাসাইনমেন্ট এর জন্য শিরোনাম পৃষ্ঠা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এখানে লিখতে হয়ঃ

ক. বিষয়ের নাম, খ. লেখকের নাম,
গ. শিক্ষকের নাম, ঘ. কোর্সের নাম,
ঙ. বিভাগের নাম, চ. বিশ্ববিদ্যালয়, প্রতিষ্ঠানের নাম, ছ. লেখা জমা দেয়ার তারিখ ইত্যাদি।

অ্যাসাইনমেন্টের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় কিছু বিষয় :

# শিরোনাম পৃষ্ঠার পর বিস্তারিত সূচিপত্র দিতে পারেন। #অ্যাসাইনমেন্ট-এর লেখা হবে অনেকটা গবেষণাধর্মী। তবে এসাইনমেন্ট লেখার ভাষা গুরুগম্ভীর হবে না প্রাঞ্জল সহজ ভাষায় লেখা বাঞ্চনীয়। # অ্যাসাইনমেন্ট লিখতে গবেষণাধর্মী মন নিয়ে লিখতে হবে। কিংবা অনুসন্ধিৎসু মন নিয়ে লিখতে হবে। # কয়েকজন মিলে গ্রুপ স্টাডি করেও অ্যাসাইনমেন্ট লিখতে পারেন।

মনে রাখতে হবে, এসাইনমেন্ট শুধু নম্বর পাবার জন্যই নয় বাস্তবতা তুলে ধরতে যথাসম্ভব সুন্দর উপস্থাপনা ও প্রয়োজন।

সর্বোপরি, আপনার অ্যাসানমেন্টেই হবে আপনার সৃজনশীলতা বিকাশের প্রকৃষ্ট মাধ্যম। অনুসন্ধিৎসু মনের পূর্ণ প্রকাশ।

ডিবি-আর আর।

ফেসবুকে লাইক দিন