জাতীয় বা জেলা ভিত্তিক গ্রেডেশন লিস্ট হলে প্রাথমিক শিক্ষকদের বঞ্চিত হওয়ার সম্ভাবনা কম

প্রাথমিক

নিজস্ব প্রতিবেক :: এসময়ে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গ্রেডেশন বা সিনিয়রিটির তালিকা তৈরির কাজ চলছে। শিক্ষা অফিসগুলোতে চলছে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের মাধ্যমে শিক্ষকদের গ্রেডেশনের তথ্য সফটওয়্যারে অন্তর্ভুক্ত করার কাজ।

এই গ্রেডেশন সফটওয়্যারে বহিরাগত বলে একটি অপশন যুক্ত করা হয়েছে। সৃষ্টি হয়েছে এ নিয়ে নতুন জটিলতা। এটি নিয়ে বহিরাগত বা অন্য উপজেলা থেকে আসা শিক্ষকদের অভিযোগ, শিক্ষকদের তথ্য এন্ট্রির পর গ্রেডেশন তালিকা তাদের অবস্থান সবার শেষে দেখাচ্ছে।

এটি নিয়ে সেই সকল বহিরাগত শিক্ষকদের দীর্ঘদিন শিক্ষকতা করা সহকারী শিক্ষক এমনকি চলতি দায়িত্বে প্রধান শিক্ষক পদে কর্মরত সহকারী শিক্ষকদের দুশ্চিন্তা বেড়ে গেছে।

এবিষয়ে খোঁজ-খবর নিয়ে জানা গেছে, দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গ্রেডেশন তালিকা সার্ভারে এন্ট্রির কাজ চলছ। যা এন্ট্রির পরে পরে সংখ্যা ও তারিখ ভিত্তিক অটোমেশন পদ্ধতিতে গ্রেডেশন লিস্ট তৈরি হচ্ছে। যা দেখে সংগত কারণে সিনিয়র হয়েও প্রমোশন না পাওয়ার ভয়ে ভীত শিক্ষকরা।

এবিষয়ে আরো খোঁজ-খবর নিয়ে শিক্ষকদের থেকে জানা গেছে, বহিরাগত শিক্ষক হওয়ায় তথা বদলি হয়ে এ উপজেলায় আসায় গ্রেডেশন লিস্ট সার্ভারে সাবমিট করার পর আমাদের অবস্থান সবার শেষে দেখাচ্ছে। তারা বলছেন তাদের পদোন্নতি এজীবনে আর হবে না।

অন্যদিকে এখন থেকে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের আওতাধীন আগে যেখানে পদোন্নতি দেওয়া হত, এখন সেখানে এবার থেকে সরকারি কর্মকমিশন পিএসসির মাধ্যমে শিক্ষকদের পদোন্নতি দেওয়া হবে। এই গ্রেডেশন লিস্ট সকল উপজেলার পাঠানো শেষ হলে শিক্ষকদের তথ্য সংগ্রহের পর তা পিএসসিতে পাঠানো হবে।

এবিষয়ে মাঠ পর্যায়ের কয়েকটি শিক্ষা অফিসের কর্তাব্যক্তিদের কাছে খোঁজ নিলে তারা এঘটনার সত্যতার কথা জানিয়েছেন। তারা বলছেন, অন্য উপজেলা থেকে বদলী নিয়ে আসা শিক্ষকদের তথ্য এন্ট্রির পর গ্রেডেশন তালিকায় তাদের অবস্থান শেষের দিকে দেখাচ্ছে। এবিষটি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে বলে জানান তারা।

দেশের সকল শিক্ষার্থীদের জন্য ডেডিকেটেড চ্যানেল

READ MORE  শিক্ষকদের উন্নীত স্কেলে নিজেই যেভাবে আইবাস++ এ বেতন ফিক্সেশন করবেন

শিক্ষকদের গুগল মিটে নিয়মিত ক্লাস নিয়ে বৃহস্পতিবার তথ্য আপলোড করার নির্দেশ

টাইমস্কেলের টাকা ফেরত না দিতে ৪৯ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের আপিল

দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আবার ছুটি বাড়ানো হল

এবিষয়ে শামসুদ্দিন মাসুদ, বাংলাদেশ প্রাথমিক বিদ্যালয় সহকারী শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রীয় সভাপতিকে ’দৈনিক বিদ্যালয়’ অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এবিষটি খুবই স্পর্শকাতর বিষয়। সকলেই আমাদের শিক্ষক। কারোর বিপক্ষে যাওয়ার সুযোগ নেই। তবে আমি চাই কেই যেন অধিকার বঞ্চিত না হন!

বিষয়টি নিয়ে শিক্ষক সমিতির সভাপতি শামসুদ্দিন মাসুদ আরো বলেন, এটির সমন্বয় করা যেতে পারে যদি সম্ভব হয়; জাতীয় পর্যায়ে গ্রেডেশন লিস্ট করতে হবে, তা না হলে জেলা পর্যায়ের গ্রেডেশন লিস্ট করলে এবিষয়ে সমন্বয় করা সম্ভব হতে পারে। তিনি বলেন, কেননা অধিকাংশ শিক্ষক বদলী হয়ে নিজ জেলা সদরেই যেয়ে থাকে। এক্ষেত্রে কেউ খুব বেশি বঞ্চিত না হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।

তবে এই গ্রেডেশন লিস্ট নিয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক সোহেল আহমেদ জানিয়েছেন, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গ্রেডেশন তালিকা গ্রেডেশনের বিধান অনুসারেই হওয়ার কথা। আমরা বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখবো।

ডিবি আর আর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *