২৭শে অক্টোবর, ২০২১ ইং, বুধবার, ১২ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা হলে এতদিন নোটিশ করা হত

৫ম শ্রেণির সমাপনী ও ৮ম শ্রেণির জেএসসি পরীক্ষা

দৈনিক বিদ্যালয় রিপোর্ট :: কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে বহুদিন বন্ধ থাকার পর চালু হয়েছে স্কুল-পাঠশালা। ছুটির পরে ঘোষণা এসেছে আগামী ১১ নভেম্বর চলতি বছরের এসএসসি ও সমমান এবং ২ ডিসেম্বর এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা হতে যাচ্ছে। কিন্তু এবারের প্রাথমিক বিদ্যালয়র পঞ্চম শ্রেণি ও মাধ্যমিকের অষ্টম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা নিয়েও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে গত ২০২০ সালের মত।

আরও খবরঃ প্রাথমিক শিক্ষকদের জ্যেষ্ঠতার তালিকা প্রকাশ : আপত্তি জানাতে হবে যেভাবে

প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন ও নিয়োগ নিয়ে সুখবর দিল মন্ত্রণালয়

প্রাথমিকে সব ক্লাস একসাথে চলবে কবে থেকে : প্রাগশি প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য

এই দুটি পাবলিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না এটি কিছুটা হলেও আঁচ করা যাচ্ছে। এর আগে প্রতি বছরের সেপ্টেম্বরের মধ্যে এ সংক্রান্ত প্রস্তুতি সারতে দেখা যায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর ও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর-মাউশিকে। কিন্তু তার ব্যাতিক্রম ঘটছে এবার। এ নিয়ে এ বছর তেমন কোন তোড়জোড় দেখা যাচ্ছে না দুই অধিদপ্তরের।

এর আগে প্রতি বছর নভেম্বর মাসের শুরুর দিকে জেএসসি-জেডিসি এবং একই মাসের ২০-২২ তারিখের দিকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হত। এবং এসব পরীক্ষার প্রস্তুতি হিসেবে সেপ্টেম্বর মাস থেকেই বিভিন্ন কার্যক্রম শুরু হত। যার মধ্যে অন্যতম পরীক্ষার প্রশ্নপত্র তৈরি, কেন্দ্র নির্ধারণ ইত্যাদি। এ নিয়ে অধিদপ্তর ও মাঠ পর্যায়ের অফিসগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে এবার এখন পর্যন্ত কোন সিদ্ধান্ত এখানো হয়নি।

এদিকে গত ১২ সেপ্টেম্বর থেকে দেশের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক খুলে দিলেও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের শ্রেণিকক্ষে প্রতিদিন সরাসরি পাঠদান করা হচ্ছে না। তাদের সপ্তাহে একদিন মাত্র শ্রেণিকক্ষে পাঠদান করা হচ্ছে।

এছাড়া জাতীয় শিক্ষাক্রমের খসড়া রূপরেখা, যাতে প্রধানমন্ত্রীর সায় হয়েছে; সেই নতুন কারিকুলামে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে।

সব মিলিয়ে এবারের প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের দুই সমাপনী বাতিল হতে পারে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। তবে সরাসরি কিছু বলতে চাচ্ছে না বোর্ড সংশ্লিষ্টরা। আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যান অধ্যাপক নেহাল আহমেদ এবিষয়ে বলেন, সমাপনী পরীক্ষা নেওয়া হয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায়। প্রতি বছর সেপ্টেম্বরের মধ্যে এ সংক্রান্ত কার্যক্রম শুরু করা হলেও এবার এখনো কোন নির্দেশনা পাইনি। সেজন্য এখনো কিছু বলা যাচ্ছে না। তিনি বলেন, পরীক্ষা হলে এতদিনে অবশ্যই নোটিশ করা হতো।

এছাড়া প্রাথমিকের সমাপনী পরীক্ষার অবস্থা হল, প্রতি বছর প্রায় ৩০ লাখ শিক্ষার্থী পঞ্চম শ্রেণির সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেয়। নভেম্বর মাসের তৃতীয় সপ্তাহে এ পরীক্ষার আয়োজন করে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। এবিষয়ে অধিদপ্তর সূত্র বলছে, ১৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা আয়োজনের কোনো প্রস্তুতি নেওয়া হয়নি। এছাড়া প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় মাদ্রাসায় ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষা আয়োজনের জন্য মাদরাসা শিক্ষাবোর্ডকে অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দিলেও,  তারা এই পরীক্ষা অনুষ্ঠানে রাজি হয়নি। তাদের পক্ষে ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা  আয়োজন করা সম্ভব নয় বলে লিখিতভাবে মন্ত্রণালয়কে জানিয়ে দিয়েছে। 

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (বিদ্যালয়) রতন চন্দ্র পণ্ডিত সমাপনী পরীক্ষা নিয়ে বলেন, সমাপনী পরীক্ষার বিষয়ে এখন পর্যন্ত চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তিনি এর বাইরে কোনো মন্তব্য করতেও রাজি হননি।

সার সংক্ষেপে, এবারের শিক্ষক ও মাধ্যমিকের এই দুই সমাপনী বাতিল হতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র থেকে ঈঙ্গিত পাওয়া গেছে। তবে এ বিষয়ে সরাসরি কিছু বলতে নারাজ বোর্ড সংশ্লিষ্টরা। এনিয়ে হয়তো সময় মত বক্তব্য আসবে ২ মন্ত্রণালয়ের দুই মন্ত্রী দীপু মনি ও জাকির হোসেনের। -ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন