২৫শে নভেম্বর, ২০২০ ইং, বুধবার, ১১ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগে কোটা বাতিল চেয়ে রিট

দৈনিক বিদ্যালয় ডেস্ক : দেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগে কোটা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়েছে। ১৬ নভেম্বর সোমবার একজন চাকুরীপ্রার্থী মো. তারেক রহমান নামক বাদীর পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী একলাছ উদ্দিন ভূইয়া এ রিট দায়ের করেন।

পড়ুনঃ আইবাস++ এর ফাইলটি ছাড়পত্রের অপেক্ষায় হিসাব মহা নিয়ন্ত্রকের টেবিলে

উক্ত রিট আবেদনে বলা হয়েছে, ‘গত ১৮ অক্টোবর প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রচারের পর বিভিন্ন গণ মাধ্যম সূত্রে জানা গেছে যে, দেশের প্রাথমিক বিদ্যালয় সমুহে ৩৫ হাজারের অধিক সহকারী শিক্ষক, প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন প্রকল্প (পিইডিপি-৪) এর আওতায় নেওয়া হবে। অথচ ২০১৮ সনের ৪ঠা অক্টোবর থেকে জন প্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে কোটা প্রথা বাতিল করা হয়।’

এবং পরবর্তীতে উদ্দেশ্য মূলকভাবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা অধিদপ্তর গত ২০১৪ সালের ৪ এপ্রিল একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে ৬০% নারী, ২০% পোষ্য কোটা আর পুরুষ প্রার্থীদের জন্য ২০% কোটা নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করে। তারা তাদের নিজেদের স্বার্থে উক্ত প্রজ্ঞাপন ৮ম অনুচ্ছেদে বিষয়টি উল্লেখ করে। যা জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ২০১৮ সালের ৪ জুলাই কোটা বাতিল সংক্রান্ত পরিপত্র এবং সংবিধানের ২৭, ২৯ ও ৩১ অনুচ্ছেদের ও পরিপন্থী।

উক্ত তারেক রহমানের হয়ে রিট আবেদনকারীর আইনজীবী একলাছ উদ্দিন ভূঁইয়া জানান, ”যারা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকুরী করছেন তাদের ক্ষেত্রে ২০% পোষ্য কোটা রাখা হয়েছে, অথচ অন্য কোনো অনগ্রসর কিংবা প্রতিবন্ধীদের বিষয়ে কিছুই উল্লেখ নেই। এই কোটা বণ্টনের ফলে সমাজের নিম্ন শ্রেণির তথা দিনমজুর, শ্রমিক, রিকশা চালক, কৃষকের চাকুরী প্রত্যাশী ছেলেদের সঙ্গে বৈষম্য মূলক আচরণ। যা তাদেরকে প্রজাতন্ত্রের কর্মে নিয়োগ লাভের অধিকার থেকে বঞ্চিত করে।”

আরো পড়ুন : প্রাথমিকের মাঠ পর্যায়ে কর্মরত কর্মকর্তাদের বদলী সংক্রান্ত নতুন আদেশ

উল্লেখ্য, উক্ত রিট আবেদনে বর্তমান মন্ত্রীপরিষদ সচিব, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে বিবাদী করা হয়েছে।

-ডিবি-আর আর।

ফেসবুকে লাইক দিন