২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং, রবিবার, ১১ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

অন্যদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র বলছে, আন্তর্জাতিক যে নিয়ম তা হল, সংক্রমণের হার ৫% এর নিচে না আসতে হবে, তা না হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হয় না।

১৩ তারিখে কী আসলেও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলছে?

প্রাথমিক, মাধ্যমিক, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়

ডিবি ডেস্ক :: চলতি বর্ধিত ছুটি শেষ হলে আগামী ১৩ জুন থেকে স্কুল-কলেজ খোলার ঘোষণা দিয়েছিলেন গত ২৬ মে তারিখে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেছিলেন, সে সময় যদি পরিস্থিতি অনুকূলে থাকে, তবে পরিস্থিতি বিবেচনায় পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

এর সাথে সাথে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন ও বলেছিলেন, আগামী ১৩ জুন থেকে পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে ৬ দিন এবং ১ম শ্রেণি থেকে চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে একদিন করে স্কুলে আনা হবে।

এছাড়া ২৬ মে, বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পাবলিক রিলেশনস অফিসার এম এ খায়েরের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও কলেজ পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ খোলার নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানানো হয়।

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার সংক্ষিপ্ত সিলেবাস প্রকাশ : ডাউনলোড

পাবজি ও ফ্রি ফায়ার গেইম দু’টি বন্ধ করতে দুই মন্ত্রণালয়ের সুপারিশ

চাকুরীতে নিয়োগ পরীক্ষা আবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে : প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা কবে

১৫ তারিখের মধ্যে বিনা ব্যার্থতায় শিক্ষকদের যে তালিকা পাঠাতে বলেছে অধিদপ্তর

এর পরের ঘটনা আজকের। ’করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আগামী ১৩ জুন থেকে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হবে। সংক্রমণের হার ৫% এর নিচে নামলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রস্তুতি নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আর পরিস্থিতি খারাপ হলে শিক্ষার্থীদের ঝুঁকির মধ্যে ফেলা হবে না বলে জানান দেশের শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, এমপি।

২৯ মে জাতীয় প্রেসক্লাবে আব্দুল মতিন খসরুর স্মরণ সভার ঘটনা হল, উক্ত সভায় শিক্ষামন্ত্রী ১৩ জুন তারিখে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমুহ খোলার কথাটি উল্লেখ করেননি। যদিও তিনি এর আগে ১৩ জুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার কথাটি জোর দিয়ে জানিয়েছিলেন। এখানেই প্রশ্ন থেকে যায় তাহলে কী আগামী ১৩ তারিখে স্কুল-কলেজ খুলবে!

অন্যদিকে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একটি সূত্র বলছে, আন্তর্জাতিক যে নিয়ম তা হল, সংক্রমণের হার ৫% এর নিচে না আসতে হবে, তা না হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা হয় না। এখানে উল্লেখ্য, দেশে গত কয়েকদিন করোনা সংক্রমণের হার চলছে ৯%। একই সূত্র বলছে, এই পরিস্থিতিতে স্কুল-কলেজ খোলা হবে কিনা তা প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর।

আজকের প্রয়াত সাবেক মন্ত্রীর সেই স্মরণ সভায় শিক্ষামন্ত্রীর এই বক্তব্যটি ১৩ তারিখ বিদ্যালয় না খোলারই সম্ভবত ইঙ্গিত। তিনি বলেন, ”মাধ্যমিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত অনলাইন মাধ্যমে ক্লাস চালু আছে। মাধ্যমিকের অ্যাসাইনমেন্ট কার্যক্রম চালু আছে। যা থেকে শিক্ষার্থীরা নিয়মিত শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

এছাড়া শিক্ষামন্ত্রী জানান, কভিড পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই আগামী ১৩ জুন স্কুল-কলেজ খোলা হবে। কোন আন্দোলনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে না। তিনি বলেন, “শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখার চাইতে বন্ধ রাখতেই আমরা বেশি এসএমএস পাচ্ছি।” আরও বলেন, আন্দোলনকে গুরুত্ব না দিয়ে পরিস্থিতি বিবেচনা করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে।

শিক্ষামন্ত্রীর আজকের বক্তব্য, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্র ও দেশের চলমান করোনা পরিস্থিতির বিবেচনায় আগামী ১৩ তারিখে যে স্কুল-কলেজ খুলছে না এটা প্রায় নিশ্চিত। এছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জে লকডাউন চলছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সূত্র বলছে, খুলনা সহ সাতক্ষীরা ও রাজশাহীতে লকডাউন আসতে পারে পরিস্থিতি বিবেচনায়।

সব মিলিয়ে দেশের করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হয়ে সংক্রমণের হার ৫% এর নিচে আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে বলেই মনে হচ্ছে প্রায় সাড়ে চার কোটির অধিক শিক্ষার্থীদের।

-ডিবি আর আর।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

ফেসবুকে লাইক দিন