৩০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং, শুক্রবার, ১৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজঃ

একজন জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার

দৈনিক বিদ্যালয়ঃ একটি পরিবারের অভিভাবকের আদর্শ, ব্যক্তিত্ব, কর্মদক্ষতা, সততা ও ভালবাসাময় আচরণে মুগ্ধ হয়ে অসাধারণ কাজ যে সৃষ্টি হতে পারে তার উদাহরণ ময়মনসিংহ শিক্ষা পরিবারের অভিভাবক ময়মনসিংহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ শফিউল হক।

যিনি সকল অফিসার ও শিক্ষকদের একজন প্রিয় অভিভাবক।

যিনি প্রচারবিমুখ এবং নিবেদিত প্রাণ একজন প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা। যার কাছে থেকে সবাই ভালো কাজের পুরুষ্কার পেয়ে থাকেন।

তিনি অজ পাড়া গাঁয়ের স্কুল ভিজিট করে শিক্ষকদের বিভিন্ন কাজ, শৃঙ্খলা এবং শ্রেণি পাঠদানের মুগ্ধ হয়ে শত শত শিক্ষক ও অফিসারদের সামনে তুলে ধরে শিক্ষক ও অফিসারদের উৎসাহিত করেন; তেমনি ভিন্ন কৌশলে ভুল ত্রুটি থাকলে সংশোধন করতে motivate করে কাজ আদায় করে নিতে পারেন!

উনি এমন একজন অভিভাবক অফিসার থেকে একজন সহকারী শিক্ষক কে পরম মমতায় বলতে পারেন ‘জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কোন কাজ করা নয়।’

এই মমতা ও ভালবাসা ওনার অধীনে কর্মরত সকল শিক্ষা পরিবারের সদস্যদের কাছে বাবার ছায়া হয়ে শক্তি ও অনুপ্রেরণা যোগায়।

এই প্রিয় অভিভাবক করোনাকালীন প্রাথমিক শিক্ষা কে এগিয়ে নিতে যে টিম ওয়ার্ক সৃষ্টি করেছেন যা অধিদপ্তর, মন্ত্রণালয় এমন কি সারা দেশে উদাহরণ সৃষ্টি করেছে।

শিক্ষার্থীদের অনলাইন পাঠদানকে সম্পূর্ণ ময়মনসিংহ জেলার প্রাথমিক শিক্ষা কে একটি প্লাটফর্ম এ নিয়ে এসে নজির সৃষ্টি করেছেন।

এখানে শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি শিক্ষকরা ও অভিজ্ঞ শিক্ষকদের পাঠদান দেখে উপকৃত ও উৎসাহিত হচ্ছেন।

এমন একজন আদর্শ ও ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন অভিভাবক এর সাথে কাজ করতে পেরে ময়মনসিংহ শিক্ষা পরিবার সকল অফিসার ও শিক্ষকবৃন্দ নিজেদের গর্বিত এবং ধন্য মনে করছে।

উল্লেখ্যঃ উনি তিনি জুম মিটিং এর মাধ্যমে প্রতিটি উপজেলার ক্লাস্টার পর্যায়ের কর্মকর্তা ও শিক্ষকদের সাথে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রেখে বিভিন্ন পরামর্শ দিচ্ছেন।

তিনি তার জেলার কাজকে গতিশীল করতে অফিসারদের সাথে সাথে মাঠ পর্যায়ের শিক্ষকদের সম্পৃক্ত করেছেন এবং জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস এ শিক্ষকদের যেকোনো কাজ কোন হয়রানি ছাড়া হচ্ছে। উনি সততা , নিষ্ঠা, আন্তরিকতা ও সহযোগিতা পরায়ণ মনোভাব এর জন্য সকল অফিসার ও শিক্ষক দের কাছে শ্রদ্ধা ও ভালবাসার একজন অভিভাবক হয়ে উঠেছেন।

ময়মনসিংহ শিক্ষা পরিবারের ভালবাসার ও প্রিয় অভিভাবকের জন্য প্রার্থনা করছি উনি যেন সুস্থ থাকেন এবং সবার অনুপ্রেরণা র শক্তি হয়ে প্রাথমিক শিক্ষা কে এগিয়ে নিয়ে যান।

ময়মনসিংহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা পরিবারের পক্ষে-
বিলকিছ আক্তার রুমা, সহকারী শিক্ষক, বয়ড়া ছালাকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ময়মনসিংহ সদর, ময়মনসিংহ।

(ডিবি)

ফেসবুকে লাইক দিন